০১:০৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিক্রমাসিংহকে সম্পর্কোন্নয়নের বার্তা মোদীর

গত বছর থেকে চরম আর্থিক সঙ্কটে ভুগছে শ্রীলঙ্কা। নাগরিকদের রোষের মুখে পড়েছেন রাষ্ট্রনেতারা। এহেন পরিস্থিতে, দু’দিনের সফরে ভারতে এলেন দ্বীপরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি রণিল বিক্রমাসিংহে। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পাশে থাকার আশ্বাস ভারতের।

সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০ জুলাই ভারতে এসে পৌঁছন বিক্রমাসিংহে। আজ অর্থাৎ ২১ জুলাই দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে এ দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। একাধিক বিষয়ে তাঁদের মধ্যে আলোচনা হয়।

এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন, “গত বছর থেকে আর্থিক কষ্টে ভুগছে শ্রীলঙ্কা। এই দুর্দিনে বন্ধু রাষ্ট্রের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আগামী দিনে কাজ করবে ভারত।” তিনি আরও জানান, “শ্রীলঙ্কায় ইউপিআই পেমেন্ট সিস্টেম চালু করার বিষয়ে একটি চুক্তি করা হবে যাতে দুই দেশের মধ্যে আর্থিক লেনদেনের বিষয়টি আরও মজবুত হয়। নিরাপত্তা ক্ষেত্রে উন্নতির স্বার্থে দুই দেশ একযোগে কাজ করবে। পর্যটন, উচ্চশিক্ষা, ব্যাবসা সব ক্ষেত্র মিলিয়ে যাতে দুই দেশের আর্থিক উন্নতি হয় সে দিকে নজর রাখা হবে। খুব শীঘ্রই আর্থিক ও প্রযুক্তিগত ক্ষেত্রে চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য আলোচনা করা হবে।”

প্রসঙ্গত, ২০২২ সাল থেকে আর্থিক দুর্দশায় ডুবে রয়েছে শ্রীলঙ্কা। সে দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপক্ষে এবং প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষের বিরুদ্ধে চরমে ওঠে ক্ষোভ। বাড়িছাড়া হন দু’জনেই। এরপর দেশের হাল ধরেন রণিল বিক্রমাসিংহে। সেই সময় ‘বন্ধু দেশে’র পাশে দাঁড়ায় মোদীর ভারত। প্রায় ৩.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থসাহায্য করে নয়াদিল্লি।

তারপরই জানা গিয়েছিল জুলাইয়ে ভারত সফরে আসবেন বিক্রমাসিংহে। এখানে তিনি দেখা করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং রাষ্ট্রপতি দৌপদী মুর্মুর সঙ্গে। সেই পরিকল্পনা মতোই এদিন সাক্ষাৎ হল মোদী ও বিক্রমাসিংহের। এরপরই আরও একবার বন্ধু রাষ্ট্রের পাশে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে থাকার আশ্বাস দিল ভারত। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

বিক্রমাসিংহকে সম্পর্কোন্নয়নের বার্তা মোদীর

প্রকাশ: ০২:৪৩:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুলাই ২০২৩

গত বছর থেকে চরম আর্থিক সঙ্কটে ভুগছে শ্রীলঙ্কা। নাগরিকদের রোষের মুখে পড়েছেন রাষ্ট্রনেতারা। এহেন পরিস্থিতে, দু’দিনের সফরে ভারতে এলেন দ্বীপরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি রণিল বিক্রমাসিংহে। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পাশে থাকার আশ্বাস ভারতের।

সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০ জুলাই ভারতে এসে পৌঁছন বিক্রমাসিংহে। আজ অর্থাৎ ২১ জুলাই দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে এ দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। একাধিক বিষয়ে তাঁদের মধ্যে আলোচনা হয়।

এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন, “গত বছর থেকে আর্থিক কষ্টে ভুগছে শ্রীলঙ্কা। এই দুর্দিনে বন্ধু রাষ্ট্রের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আগামী দিনে কাজ করবে ভারত।” তিনি আরও জানান, “শ্রীলঙ্কায় ইউপিআই পেমেন্ট সিস্টেম চালু করার বিষয়ে একটি চুক্তি করা হবে যাতে দুই দেশের মধ্যে আর্থিক লেনদেনের বিষয়টি আরও মজবুত হয়। নিরাপত্তা ক্ষেত্রে উন্নতির স্বার্থে দুই দেশ একযোগে কাজ করবে। পর্যটন, উচ্চশিক্ষা, ব্যাবসা সব ক্ষেত্র মিলিয়ে যাতে দুই দেশের আর্থিক উন্নতি হয় সে দিকে নজর রাখা হবে। খুব শীঘ্রই আর্থিক ও প্রযুক্তিগত ক্ষেত্রে চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য আলোচনা করা হবে।”

প্রসঙ্গত, ২০২২ সাল থেকে আর্থিক দুর্দশায় ডুবে রয়েছে শ্রীলঙ্কা। সে দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপক্ষে এবং প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষের বিরুদ্ধে চরমে ওঠে ক্ষোভ। বাড়িছাড়া হন দু’জনেই। এরপর দেশের হাল ধরেন রণিল বিক্রমাসিংহে। সেই সময় ‘বন্ধু দেশে’র পাশে দাঁড়ায় মোদীর ভারত। প্রায় ৩.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থসাহায্য করে নয়াদিল্লি।

তারপরই জানা গিয়েছিল জুলাইয়ে ভারত সফরে আসবেন বিক্রমাসিংহে। এখানে তিনি দেখা করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং রাষ্ট্রপতি দৌপদী মুর্মুর সঙ্গে। সেই পরিকল্পনা মতোই এদিন সাক্ষাৎ হল মোদী ও বিক্রমাসিংহের। এরপরই আরও একবার বন্ধু রাষ্ট্রের পাশে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে থাকার আশ্বাস দিল ভারত। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক