০৮:৫০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রপ্তানীতে ৪০০ বিলিয়ন ডলারের গণ্ডি পেরালো ভারত

বিশ্ব দরবারে দেশকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য আত্মনির্ভরতার বার্তাই দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই পথ অনুসরণ করেই নির্দিষ্ট সময়ের ৯ দিন আগেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করল ভারত। চলতি অর্থবর্ষে ৪০ হাজার কোটি ডলারের রফতানির লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হতেই দেশের কৃষক থেকে শুরু করে এমএসএমই ও রফতানিকারকদের ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রী।

২৩ মার্চ, বুধবার, সকালেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইট করে বলেন, “ভারত পণ্য রফতানিতে ৪০ হাজার কোটি ডলারের যে লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছিল, তা এই বছরই প্রথম পূরণ হল। আমি সকল কৃষক, তাঁতি, এমএসএমই, উৎপাদক ও রফতানিকারকদের ধন্যবাদ জানাতে চাই এই সাফল্যের জন্য। আত্মনির্ভর ভারত গড়ার পথে এটা একটা উল্লেখযোগ্য মাইলফলক।”

এর আগে গত ফেব্রুয়ারি মাসেই লোকসভায় কেন্দ্রীয় বাণিজ্যমন্ত্রী পিযুষ গয়াল জানিয়েছিলেন, রফতানির লক্ষ্যমাত্রা পূরণের পথে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। তিনি বলেছিলেন, “টানা ১০ মাস ধরে, ২০২১ সালের এপ্রিল মাস থেকে ২০২২ সালের জানুয়ারি অবধি ভারত রফতানিতে ৩০ হাজার ডলারের লক্ষ্যমাত্রা পার করেছে। এটা দারুণ সাফল্য। ইতিমধ্যেই আমরা ৩৩৪০০ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি করেছি, যা ১২ মাসে সর্বোচ্চ রফতানির হার। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই আমরা ৪০ হাজার ডলারের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করব।”

কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাস অবধি ভারত ৩৭০০ কোটি ডলারের লক্ষ্যমাত্রা পার করেছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাস অবধি এই রফতানির সংখ্যা ছিল ২৭ হাজার কোটি ডলারেরও বেশি।

সম্প্রতিই জাপান ও অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীও ভারতে বিনিয়োগের ঘোষণা করেছেন। চলতি সপ্তাহের সোমবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে বসেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। ওই বৈঠকেই ভারতে শিক্ষা, উন্নত প্রযুক্তি, গুরুত্বপূর্ণ খনিজ পদার্থ, মহাকাশ, বৈদেশিক বাণিজ্য ও সামরিক ক্ষেত্র মিলিয়ে ১৫০০ কোটি টাকার বিনিয়োগের কথা ঘোষণা করা হয়।

অন্যদিকে, শনিবার জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদাও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেন এবং আগামী পাঁচ বছরে ভারতে ৩.২ লক্ষ কোটি টাকার বিনিয়োগ করার কথা ঘোষণা করা হয়। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

রপ্তানীতে ৪০০ বিলিয়ন ডলারের গণ্ডি পেরালো ভারত

প্রকাশ: ০৬:১৩:১৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৩ মার্চ ২০২২

বিশ্ব দরবারে দেশকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য আত্মনির্ভরতার বার্তাই দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই পথ অনুসরণ করেই নির্দিষ্ট সময়ের ৯ দিন আগেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করল ভারত। চলতি অর্থবর্ষে ৪০ হাজার কোটি ডলারের রফতানির লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হতেই দেশের কৃষক থেকে শুরু করে এমএসএমই ও রফতানিকারকদের ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রী।

২৩ মার্চ, বুধবার, সকালেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইট করে বলেন, “ভারত পণ্য রফতানিতে ৪০ হাজার কোটি ডলারের যে লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছিল, তা এই বছরই প্রথম পূরণ হল। আমি সকল কৃষক, তাঁতি, এমএসএমই, উৎপাদক ও রফতানিকারকদের ধন্যবাদ জানাতে চাই এই সাফল্যের জন্য। আত্মনির্ভর ভারত গড়ার পথে এটা একটা উল্লেখযোগ্য মাইলফলক।”

এর আগে গত ফেব্রুয়ারি মাসেই লোকসভায় কেন্দ্রীয় বাণিজ্যমন্ত্রী পিযুষ গয়াল জানিয়েছিলেন, রফতানির লক্ষ্যমাত্রা পূরণের পথে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। তিনি বলেছিলেন, “টানা ১০ মাস ধরে, ২০২১ সালের এপ্রিল মাস থেকে ২০২২ সালের জানুয়ারি অবধি ভারত রফতানিতে ৩০ হাজার ডলারের লক্ষ্যমাত্রা পার করেছে। এটা দারুণ সাফল্য। ইতিমধ্যেই আমরা ৩৩৪০০ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি করেছি, যা ১২ মাসে সর্বোচ্চ রফতানির হার। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই আমরা ৪০ হাজার ডলারের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করব।”

কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাস অবধি ভারত ৩৭০০ কোটি ডলারের লক্ষ্যমাত্রা পার করেছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাস অবধি এই রফতানির সংখ্যা ছিল ২৭ হাজার কোটি ডলারেরও বেশি।

সম্প্রতিই জাপান ও অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীও ভারতে বিনিয়োগের ঘোষণা করেছেন। চলতি সপ্তাহের সোমবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে বসেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। ওই বৈঠকেই ভারতে শিক্ষা, উন্নত প্রযুক্তি, গুরুত্বপূর্ণ খনিজ পদার্থ, মহাকাশ, বৈদেশিক বাণিজ্য ও সামরিক ক্ষেত্র মিলিয়ে ১৫০০ কোটি টাকার বিনিয়োগের কথা ঘোষণা করা হয়।

অন্যদিকে, শনিবার জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদাও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেন এবং আগামী পাঁচ বছরে ভারতে ৩.২ লক্ষ কোটি টাকার বিনিয়োগ করার কথা ঘোষণা করা হয়। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক