০৮:১৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনে মানবিক সাহায্য পাঠাতে শুরু করেছে ভারত

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনে ওষুধপত্রসহ অন্যান্য মানবিক সহায়তা পাঠাতে আরম্ভ করেছে ভারত। গত ০১ মার্চ, মঙ্গলবার, পোল্যান্ড হয়ে ভারতের পাঠানো প্রথম চালানটি ইউক্রেনে পৌছে দেয়া হয়েছে। এক বিশেষ প্রেস ব্রিফিং এ কথাটি নিশ্চিত করেছেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্রী হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। বুধবার এই ত্রাণ সহায়তার দ্বিতীয় চালান পাঠানো হবে। এতে ভারতের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত ইগর পোলিখা।

একইসঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পড়ুয়া শিক্ষার্থী সহ ইউক্রেনে এখনও যে ভারতীয়রা আটকে পড়ে রয়েছেন, তাঁদের ফেরাতে বিশেষ দূত হিসেবে ইউক্রেনের প্রতিবেশী দেশগুলোতে যাবেন চার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া যাবেন রোমানিয়া। কিরেন রিজিজু স্লোভাক প্রজাতন্ত্র, হরদীপ পুরী হাঙ্গেরি ও ভিকে সিংহ পোল্যান্ডে যাবেন। ভারতীয়দের উদ্ধার করে নিয়ে আসার প্রক্রিয়ার তদারকি ও সমন্বয় সাধন করবেন এই চার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।  পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি এ কথা জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ভারতীয়দের উদ্ধার করে নিয়ে আসার চলতি প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানাতে গিয়ে অরিন্দম বাগচি বলেছেন, এখনও পর্যন্ত ছয়টি উড়ান ১৪০০ ভারতীয়কে নিয়ে দেশে ফিরেছে। এর মধ্যে চারটি উড়ান দেশে ফিরেছে রোমানিয়ার বুখারেস্ট থেকে। দুটি উড়ান দেশে এসেছে হাঙ্গেরির বুদাপেস্ট থেকে। বাগচি আরও বলেছেন, যুদ্ধ শুরুর পূর্বেই আমাদের নির্দেশিকা জারির পর প্রায় ৮ হাজার ভারতীয় ইউক্রেন ছেড়েছেন।

বাগচি ভারতীয়দের সরাসরি সীমান্তে না আসার আর্জি জানিয়েছেন। কারণ, সীমান্তগুলোতে ভীড় রয়েছে এবং উদ্ধারের কাজে সময় লাগবে। তিনি বলেছেন, ইউক্রেনের পরিস্থিতি এখনও জটিল ও উদ্বেগজনক। কিন্তু এরইমধ্যে উদ্ধার অভিযান ত্বরান্বিত করা গিয়েছে।

তিনি বলেছেন, আমরা ভারতীয়দের অনুরোধ করছে, সরাসরি সীমান্তে যাবেন না। কারণ, সেখানে ভীড় রয়েছে। উদ্ধারের কাজ সময়সাপেক্ষ। নিকটবর্তী শহরে যান এবং সেখানে আশ্রয় নিন। আমরা সেখানে ব্যবস্থা করছি, আমাদের দল আপনাদের সাহায্য করবে। আমাদের পর্যাপ্ত উড়ান রয়েছে।

সাংবাদিক বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন, কিয়েভ, বুখারেস্ট, বুদাপেস্ট ও ওয়ারশের ভারতীয় দূতাবাস উদ্ধার কাজের ক্ষেত্রে বাস পরিষেবা নিয়ে কাজ করছে। এর পাশাপাশি যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনে মানবিক সাহায্য পাঠানো অব্যহত রাখবে ভারত। যুদ্ধজনিত পরিস্থিতিতে দুর্গতদের জন্য ওষুধপত্র সহ মানবিক সাহায্য পাঠানোর অঙ্গীকার করেছে ভারত। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

ইউক্রেনে মানবিক সাহায্য পাঠাতে শুরু করেছে ভারত

প্রকাশ: ১২:৫৬:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২ মার্চ ২০২২

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনে ওষুধপত্রসহ অন্যান্য মানবিক সহায়তা পাঠাতে আরম্ভ করেছে ভারত। গত ০১ মার্চ, মঙ্গলবার, পোল্যান্ড হয়ে ভারতের পাঠানো প্রথম চালানটি ইউক্রেনে পৌছে দেয়া হয়েছে। এক বিশেষ প্রেস ব্রিফিং এ কথাটি নিশ্চিত করেছেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্রী হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। বুধবার এই ত্রাণ সহায়তার দ্বিতীয় চালান পাঠানো হবে। এতে ভারতের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত ইগর পোলিখা।

একইসঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পড়ুয়া শিক্ষার্থী সহ ইউক্রেনে এখনও যে ভারতীয়রা আটকে পড়ে রয়েছেন, তাঁদের ফেরাতে বিশেষ দূত হিসেবে ইউক্রেনের প্রতিবেশী দেশগুলোতে যাবেন চার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া যাবেন রোমানিয়া। কিরেন রিজিজু স্লোভাক প্রজাতন্ত্র, হরদীপ পুরী হাঙ্গেরি ও ভিকে সিংহ পোল্যান্ডে যাবেন। ভারতীয়দের উদ্ধার করে নিয়ে আসার প্রক্রিয়ার তদারকি ও সমন্বয় সাধন করবেন এই চার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।  পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি এ কথা জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ভারতীয়দের উদ্ধার করে নিয়ে আসার চলতি প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানাতে গিয়ে অরিন্দম বাগচি বলেছেন, এখনও পর্যন্ত ছয়টি উড়ান ১৪০০ ভারতীয়কে নিয়ে দেশে ফিরেছে। এর মধ্যে চারটি উড়ান দেশে ফিরেছে রোমানিয়ার বুখারেস্ট থেকে। দুটি উড়ান দেশে এসেছে হাঙ্গেরির বুদাপেস্ট থেকে। বাগচি আরও বলেছেন, যুদ্ধ শুরুর পূর্বেই আমাদের নির্দেশিকা জারির পর প্রায় ৮ হাজার ভারতীয় ইউক্রেন ছেড়েছেন।

বাগচি ভারতীয়দের সরাসরি সীমান্তে না আসার আর্জি জানিয়েছেন। কারণ, সীমান্তগুলোতে ভীড় রয়েছে এবং উদ্ধারের কাজে সময় লাগবে। তিনি বলেছেন, ইউক্রেনের পরিস্থিতি এখনও জটিল ও উদ্বেগজনক। কিন্তু এরইমধ্যে উদ্ধার অভিযান ত্বরান্বিত করা গিয়েছে।

তিনি বলেছেন, আমরা ভারতীয়দের অনুরোধ করছে, সরাসরি সীমান্তে যাবেন না। কারণ, সেখানে ভীড় রয়েছে। উদ্ধারের কাজ সময়সাপেক্ষ। নিকটবর্তী শহরে যান এবং সেখানে আশ্রয় নিন। আমরা সেখানে ব্যবস্থা করছি, আমাদের দল আপনাদের সাহায্য করবে। আমাদের পর্যাপ্ত উড়ান রয়েছে।

সাংবাদিক বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন, কিয়েভ, বুখারেস্ট, বুদাপেস্ট ও ওয়ারশের ভারতীয় দূতাবাস উদ্ধার কাজের ক্ষেত্রে বাস পরিষেবা নিয়ে কাজ করছে। এর পাশাপাশি যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনে মানবিক সাহায্য পাঠানো অব্যহত রাখবে ভারত। যুদ্ধজনিত পরিস্থিতিতে দুর্গতদের জন্য ওষুধপত্র সহ মানবিক সাহায্য পাঠানোর অঙ্গীকার করেছে ভারত। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক