০৬:১৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারতীয় ছাত্রদের কিয়েভ স্টেশনমুখী হওয়ার পরামর্শ

গত চারদিন ধরে প্রবল সংঘর্ষ চলছে ইউক্রেনে। রাশিয়ান সেনার আক্রমণে আগুন জ্বলছে দেশটির বহু জায়গায়। সংঘর্ষ শুরু হয়েছে রাজধানী কিয়েভেও। এরই মধ্যে সেখানে আটকে বহু ভারতীয় পড়ুয়া। কিয়েভের বিভিন্ন বাঙ্কারে আশ্রয় নিয়েছেন তারা। অনেকেই পায়ে হেঁটে সীমান্ত পার করার চেষ্টা চালাচ্ছেন।

এই পরিস্থিতিতে এবার ভারতীয় সহ বিভিন্ন দেশে পড়ুয়া এবং সাধারণ কিয়েভবাসীদের জন্য বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করল ইউক্রেনের রেল কর্তৃপক্ষ। কিয়েভ ছেড়ে যারা যেতে চান, তাঁদের দেশের সীমান্ত পার করে দেবে এই ট্রেন।

এদিকে, ইউক্রেনে ভারতীয় দূতাবাস এক টুইট করে জানায়, “কিয়েভে কারফিউ প্রত্যাহার করা হয়েছে। কিয়েভ রেল স্টেশন থেকে বিশেষ ট্রেন ছেড়ে যাবে সীমান্তের উদ্দেশ্যে। ভারতীয় পড়ুয়ারা সেই ট্রেনে করে দেশ ছাড়তে পারেন।”

পাশাপাশি পূর্ব ইউক্রেন থেকে দূরে থাকতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ভারতীয় পড়ুয়াদের। ভারতীয় দূতাবাস জানিয়েছে এই ট্রেন যাত্রার জন্য ভারতীয় পড়ুয়াদের থেকে কোনও পয়সা নেবে না ইউক্রেন রেল কর্তৃপক্ষ।

এর আগে, রাশিয়া-ইউক্রেন সঙ্কট শুরু হওয়ার পর এখনও অবধি প্রায় দু হাজার ভারতীয় নাগরিককে নিরাপদ অবস্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব শ্রী হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। গোটা কার্যক্রমটি ভারত সরকারের সরাসরি তত্ত্বাবধানে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। এর নাম দেয়া হয়েছে ‘অপারেশন গঙ্গা’।

প্রাথমিক পর্বে, রোমানিয়া, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ড, স্লোভাক প্রজাতন্ত্রসহ ইউক্রেনের প্রতিবেশী দেশগুলোতে স্থলপথে স্থানান্তর করা হচ্ছে ভারতীয় নাগরিকদের। গত রবিবার অপারেশন গঙ্গা সম্পর্কে একটি বিশেষ ব্রিফিংয়ে ভাষণ দেওয়ার সময় পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, “অপারেশন গঙ্গার অধীনে এখনও অবধি প্রায় ১০০০ নাগরিককে রোমানিয়া ও হাঙ্গেরিতে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এছাড়াও, আরও ১০০০ জন নাগরিক অন্যান্য নিরাপদ অবস্থানে সরে গিয়েছেন বা সরিয়ে নেয়া হয়েছে, যেখান থেকে সরাসরি ভারতের উদ্দেশ্যে উড়াল দিতে পারবেন তারা।”

প্রসঙ্গত, ‘অপারেশন গঙ্গা’র চতুর্থ বিমানে গতকাল রোমানিয়া থেকে ভারতে ফিরছেন আটকে পড়া ১৯৮ ভারতীয়। এর আগে শনিবার সন্ধ্যাবেলায় প্রথম ফ্লাইটে ২১৯ ভারতীয়কে মুম্বাই বিমান বন্দরে নিয়ে আসা হয়। রবিবার সকালেও প্রায় ২৫০ জন ভারতীয় দিল্লিতে পৌঁছেছেন। সোমবার প্রায় ২৪৯ ভারতীয়কে সঙ্গে নিয়ে রোমানিয়ার বুখারেস্ট থেকে দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে একটি ফ্লাইট। হাঙ্গেরির বুদাপেস্ট থেকেও আরেকটি ফ্লাইট ছাড়ার কথা রয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

ভারতীয় ছাত্রদের কিয়েভ স্টেশনমুখী হওয়ার পরামর্শ

প্রকাশ: ০১:৩২:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২

গত চারদিন ধরে প্রবল সংঘর্ষ চলছে ইউক্রেনে। রাশিয়ান সেনার আক্রমণে আগুন জ্বলছে দেশটির বহু জায়গায়। সংঘর্ষ শুরু হয়েছে রাজধানী কিয়েভেও। এরই মধ্যে সেখানে আটকে বহু ভারতীয় পড়ুয়া। কিয়েভের বিভিন্ন বাঙ্কারে আশ্রয় নিয়েছেন তারা। অনেকেই পায়ে হেঁটে সীমান্ত পার করার চেষ্টা চালাচ্ছেন।

এই পরিস্থিতিতে এবার ভারতীয় সহ বিভিন্ন দেশে পড়ুয়া এবং সাধারণ কিয়েভবাসীদের জন্য বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করল ইউক্রেনের রেল কর্তৃপক্ষ। কিয়েভ ছেড়ে যারা যেতে চান, তাঁদের দেশের সীমান্ত পার করে দেবে এই ট্রেন।

এদিকে, ইউক্রেনে ভারতীয় দূতাবাস এক টুইট করে জানায়, “কিয়েভে কারফিউ প্রত্যাহার করা হয়েছে। কিয়েভ রেল স্টেশন থেকে বিশেষ ট্রেন ছেড়ে যাবে সীমান্তের উদ্দেশ্যে। ভারতীয় পড়ুয়ারা সেই ট্রেনে করে দেশ ছাড়তে পারেন।”

পাশাপাশি পূর্ব ইউক্রেন থেকে দূরে থাকতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ভারতীয় পড়ুয়াদের। ভারতীয় দূতাবাস জানিয়েছে এই ট্রেন যাত্রার জন্য ভারতীয় পড়ুয়াদের থেকে কোনও পয়সা নেবে না ইউক্রেন রেল কর্তৃপক্ষ।

এর আগে, রাশিয়া-ইউক্রেন সঙ্কট শুরু হওয়ার পর এখনও অবধি প্রায় দু হাজার ভারতীয় নাগরিককে নিরাপদ অবস্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব শ্রী হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। গোটা কার্যক্রমটি ভারত সরকারের সরাসরি তত্ত্বাবধানে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। এর নাম দেয়া হয়েছে ‘অপারেশন গঙ্গা’।

প্রাথমিক পর্বে, রোমানিয়া, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ড, স্লোভাক প্রজাতন্ত্রসহ ইউক্রেনের প্রতিবেশী দেশগুলোতে স্থলপথে স্থানান্তর করা হচ্ছে ভারতীয় নাগরিকদের। গত রবিবার অপারেশন গঙ্গা সম্পর্কে একটি বিশেষ ব্রিফিংয়ে ভাষণ দেওয়ার সময় পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, “অপারেশন গঙ্গার অধীনে এখনও অবধি প্রায় ১০০০ নাগরিককে রোমানিয়া ও হাঙ্গেরিতে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এছাড়াও, আরও ১০০০ জন নাগরিক অন্যান্য নিরাপদ অবস্থানে সরে গিয়েছেন বা সরিয়ে নেয়া হয়েছে, যেখান থেকে সরাসরি ভারতের উদ্দেশ্যে উড়াল দিতে পারবেন তারা।”

প্রসঙ্গত, ‘অপারেশন গঙ্গা’র চতুর্থ বিমানে গতকাল রোমানিয়া থেকে ভারতে ফিরছেন আটকে পড়া ১৯৮ ভারতীয়। এর আগে শনিবার সন্ধ্যাবেলায় প্রথম ফ্লাইটে ২১৯ ভারতীয়কে মুম্বাই বিমান বন্দরে নিয়ে আসা হয়। রবিবার সকালেও প্রায় ২৫০ জন ভারতীয় দিল্লিতে পৌঁছেছেন। সোমবার প্রায় ২৪৯ ভারতীয়কে সঙ্গে নিয়ে রোমানিয়ার বুখারেস্ট থেকে দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে একটি ফ্লাইট। হাঙ্গেরির বুদাপেস্ট থেকেও আরেকটি ফ্লাইট ছাড়ার কথা রয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক