১২:১৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ভারতের বাজেটে আফগানিস্তানের জন্য ২০০ কোটি

তালিবান শাসনাধীন যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের ভেঙে পড়া অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে অগ্রণী ভূমিকা নিলো ভারত৷ দেশটির কেন্দ্রীয় বাজেটে প্রতিবেশী আফগানিস্তানের জন্য ২০০ কোটি রূপী বরাদ্দ করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন৷ তালিবানের নেতৃত্বকে স্বীকৃতি না দিলেও আফগানিস্তানের জন্য ভারতের বাজেট বরাদ্দ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মত বিশেষজ্ঞদের৷

তালিবান কাবুলের দখল নেওয়ার পর থেকে চরম অস্থিরতার সাক্ষী হয়েছে আফগানিস্তান৷ দেশ ছাড়তে মরিয়া হয়েছেন দেশটির নাগরিকরা ৷ সেই সময় থেকে এখনও পর্যন্ত আফগানিস্তানকে তিন ধাপে মেডিক্যাল সাহায্য পাঠিয়েছে ভারত৷ চলতি ফেব্রুয়ারিতেও ত্রাণ হিসেবে সেখানে গম পাঠানো হবে বলে মনে করা হচ্ছে ৷

আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর প্রবল সংকটের মধ্যে থাকা আফগানিস্তানকে ত্রাণ হিসেবে গম পাঠানোর ভারতীয় প্রচেষ্টায় রাস্তা আটকে বাধ সেধেছিল পাকিস্তান ৷ এজন্য তাদের আন্তর্জাতিক মহলে যথেষ্ট নিন্দার মুখে পড়তে হয়েছে ৷ এরপরই নিজেদের অবস্থান থেকে সরে ভারতের ত্রাণ পাঠানোর জন্য রাস্তা ছাড়তে রাজি হয় ইসলামাবাদ ৷

যদিও আফগানিস্তানের জন্য আসন্ন ২০২২-২৩ আর্থিক বছরের বাজেট বরাদ্দ চলতি বছরের বাজেট বরাদ্দের থেকে অনেকটাই কম৷ বর্তমানে ভারতে যে আর্থিক বছর চলছে, সেখানে প্রতিবেশী এই দেশের জন্য ৩৫০ কোটি রূপী বাজেটে বরাদ্দ করা হয়েছিলো। সেখানে এবার ২০০ কোটি রূপী বরাদ্দ করা হয়েছে।

ভারতের এবারের বাজেটে মালদ্বীপের জন্য ৩৬০ কোটি রূপী, মায়ানমারের জন্য ৬০০ কোটি রূপী, মঙ্গোলিয়ার জন্য ১২ কোটি রূপী ও বাংলাদেশের জন্য ৩০০ কোটি রূপী বরাদ্দ করা হয়েছে৷ আগামী দিনে এই দেশগুলোর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে চায় দিল্লী৷

এদিকে, এবারের বাজেটে আগামী আর্থিক বছরে নেপাল ও ভুটানের জন্য বরাদ্দ অনেকটা কমিয়ে দিয়েছেন সীতারমন৷ যদিও সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ রয়েছে ভুটানের জন্য। দেশটির জন্য বরাদ্দ ২ হাজার ২৬৬ কোটি রুপি। তবে এর আগের অর্থবছরে (২০২১-২০২২) ভুটানের জন্য বরাদ্দ ছিল ৩ হাজার ৪ কোটি। এরপর মরিশাসের জন্য বরাদ্দ বেশি। দ্বীপরাষ্ট্রের জন্য বরাদ্দ ৯০০ কোটি রুপি। নেপালের জন্য বরাদ্দ ৭৫০ কোটি রুপি। আর আফ্রিকায় দূতাবাস খোলার জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে ২৫০ কোটি রুপি।

বরাদ্দে কোনও পরিবর্তন করা হয়নি শ্রীলঙ্কা ও মরিশাসের ক্ষেত্রে ৷ সবমিলিয়ে ভারতের বিদেশ নীতির ক্ষেত্রে বাজেট বরাদ্দ চলতি বছরের তুলনায় অনেকটা বাড়িয়ে আগামী আর্থিক বছরে ৬২৯২.৩০ কোটি রুপী করা হয়েছে৷

খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

ভারতের বাজেটে আফগানিস্তানের জন্য ২০০ কোটি

প্রকাশ: ০২:০২:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২২

তালিবান শাসনাধীন যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের ভেঙে পড়া অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে অগ্রণী ভূমিকা নিলো ভারত৷ দেশটির কেন্দ্রীয় বাজেটে প্রতিবেশী আফগানিস্তানের জন্য ২০০ কোটি রূপী বরাদ্দ করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন৷ তালিবানের নেতৃত্বকে স্বীকৃতি না দিলেও আফগানিস্তানের জন্য ভারতের বাজেট বরাদ্দ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মত বিশেষজ্ঞদের৷

তালিবান কাবুলের দখল নেওয়ার পর থেকে চরম অস্থিরতার সাক্ষী হয়েছে আফগানিস্তান৷ দেশ ছাড়তে মরিয়া হয়েছেন দেশটির নাগরিকরা ৷ সেই সময় থেকে এখনও পর্যন্ত আফগানিস্তানকে তিন ধাপে মেডিক্যাল সাহায্য পাঠিয়েছে ভারত৷ চলতি ফেব্রুয়ারিতেও ত্রাণ হিসেবে সেখানে গম পাঠানো হবে বলে মনে করা হচ্ছে ৷

আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর প্রবল সংকটের মধ্যে থাকা আফগানিস্তানকে ত্রাণ হিসেবে গম পাঠানোর ভারতীয় প্রচেষ্টায় রাস্তা আটকে বাধ সেধেছিল পাকিস্তান ৷ এজন্য তাদের আন্তর্জাতিক মহলে যথেষ্ট নিন্দার মুখে পড়তে হয়েছে ৷ এরপরই নিজেদের অবস্থান থেকে সরে ভারতের ত্রাণ পাঠানোর জন্য রাস্তা ছাড়তে রাজি হয় ইসলামাবাদ ৷

যদিও আফগানিস্তানের জন্য আসন্ন ২০২২-২৩ আর্থিক বছরের বাজেট বরাদ্দ চলতি বছরের বাজেট বরাদ্দের থেকে অনেকটাই কম৷ বর্তমানে ভারতে যে আর্থিক বছর চলছে, সেখানে প্রতিবেশী এই দেশের জন্য ৩৫০ কোটি রূপী বাজেটে বরাদ্দ করা হয়েছিলো। সেখানে এবার ২০০ কোটি রূপী বরাদ্দ করা হয়েছে।

ভারতের এবারের বাজেটে মালদ্বীপের জন্য ৩৬০ কোটি রূপী, মায়ানমারের জন্য ৬০০ কোটি রূপী, মঙ্গোলিয়ার জন্য ১২ কোটি রূপী ও বাংলাদেশের জন্য ৩০০ কোটি রূপী বরাদ্দ করা হয়েছে৷ আগামী দিনে এই দেশগুলোর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে চায় দিল্লী৷

এদিকে, এবারের বাজেটে আগামী আর্থিক বছরে নেপাল ও ভুটানের জন্য বরাদ্দ অনেকটা কমিয়ে দিয়েছেন সীতারমন৷ যদিও সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ রয়েছে ভুটানের জন্য। দেশটির জন্য বরাদ্দ ২ হাজার ২৬৬ কোটি রুপি। তবে এর আগের অর্থবছরে (২০২১-২০২২) ভুটানের জন্য বরাদ্দ ছিল ৩ হাজার ৪ কোটি। এরপর মরিশাসের জন্য বরাদ্দ বেশি। দ্বীপরাষ্ট্রের জন্য বরাদ্দ ৯০০ কোটি রুপি। নেপালের জন্য বরাদ্দ ৭৫০ কোটি রুপি। আর আফ্রিকায় দূতাবাস খোলার জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে ২৫০ কোটি রুপি।

বরাদ্দে কোনও পরিবর্তন করা হয়নি শ্রীলঙ্কা ও মরিশাসের ক্ষেত্রে ৷ সবমিলিয়ে ভারতের বিদেশ নীতির ক্ষেত্রে বাজেট বরাদ্দ চলতি বছরের তুলনায় অনেকটা বাড়িয়ে আগামী আর্থিক বছরে ৬২৯২.৩০ কোটি রুপী করা হয়েছে৷

খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক