০৯:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২০২২ সালে আরও জোরদার ভারত-মার্কিন সম্পর্ক

চলতি বছরে ভারত-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক আরও মজবুত হবে বলে মন্তব্য করেছে হোয়াইট হাউস। করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই সহ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা, কোয়াডভূক্ত কার্যক্রম পরিচালনা এবং দ্বিপাক্ষিক সকল ক্ষেত্রে এই সম্পর্ক জোরদারে বিভিন্ন যৌথ উদ্যোগ আলোর মুখ দেখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি।

গত ১০ জানুয়ারী, সোমবার, নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিং এ সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে জেন সাকি বলেন, “আপনারা সবাই জানেন গত সেপ্টেম্বরে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আতিথেয়তা দেন রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন। তাঁদের বৈঠকটি ছিলো ভারত-মার্কিন সম্পর্কের এক নতুন ইতিহাসের শুরু। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে উভয় নেতারই নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে। আশা করি চলতি বছর আমরা আরও ঘনিষ্ঠভাবে কাজ চালিয়ে যাবো।”

এসময়, দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিভিন্ন ক্ষেত্র সম্পর্কেও ধারণা দেন সাকি। তিনি বলেন, “আমরা আশা করি মহামারী মোকাবেলা, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই, কোয়াড এর মাধ্যমে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি, সাইবার ও উদীয়মান প্রযুক্তি খাতে সহযোগিতা সম্প্রসারন সহ বিভিন্ন খাতে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বৃদ্ধি পাবে। এমনকি এইডস মোকাবেলার ক্ষেত্রেও আমরা একত্রে কাজ করার প্রস্তুতি নিয়েছি।”

তাছাড়া, সম্পর্কের স্বার্থে নিয়মিত উচ্চ স্তরের সংলাপ চালিয়ে যাওয়া এবং প্রতিনিধিদের উভয় রাষ্ট্র সফরের উপরও গুরুত্বারোপ করেন সাকি। ব্রিফিংকালে ভারতের সীমান্তে চীনের আগ্রাসী আচরণ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমেরিকা সার্বক্ষণিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। আমরা এই সীমান্ত বিরোধের আলোচনার মাধ্যমে এবং শান্তিপূর্ণ নিষ্পত্তিকে সমর্থন করি। আমরা এই অঞ্চলে চীনের আচরণকে কীভাবে দেখি সে সম্পর্কে আমরা বরাবরই খুব স্পষ্ট ছিলাম। প্রতিবেশীদের ভয় দেখানোর যে কৌশল চীন নিয়েছে, তা নিয়ে আমরা উদ্বীগ্ন।” খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

২০২২ সালে আরও জোরদার ভারত-মার্কিন সম্পর্ক

প্রকাশ: ১২:৪৩:৪৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জানুয়ারী ২০২২

চলতি বছরে ভারত-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক আরও মজবুত হবে বলে মন্তব্য করেছে হোয়াইট হাউস। করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই সহ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা, কোয়াডভূক্ত কার্যক্রম পরিচালনা এবং দ্বিপাক্ষিক সকল ক্ষেত্রে এই সম্পর্ক জোরদারে বিভিন্ন যৌথ উদ্যোগ আলোর মুখ দেখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি।

গত ১০ জানুয়ারী, সোমবার, নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিং এ সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে জেন সাকি বলেন, “আপনারা সবাই জানেন গত সেপ্টেম্বরে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আতিথেয়তা দেন রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন। তাঁদের বৈঠকটি ছিলো ভারত-মার্কিন সম্পর্কের এক নতুন ইতিহাসের শুরু। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে উভয় নেতারই নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে। আশা করি চলতি বছর আমরা আরও ঘনিষ্ঠভাবে কাজ চালিয়ে যাবো।”

এসময়, দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিভিন্ন ক্ষেত্র সম্পর্কেও ধারণা দেন সাকি। তিনি বলেন, “আমরা আশা করি মহামারী মোকাবেলা, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই, কোয়াড এর মাধ্যমে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি, সাইবার ও উদীয়মান প্রযুক্তি খাতে সহযোগিতা সম্প্রসারন সহ বিভিন্ন খাতে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বৃদ্ধি পাবে। এমনকি এইডস মোকাবেলার ক্ষেত্রেও আমরা একত্রে কাজ করার প্রস্তুতি নিয়েছি।”

তাছাড়া, সম্পর্কের স্বার্থে নিয়মিত উচ্চ স্তরের সংলাপ চালিয়ে যাওয়া এবং প্রতিনিধিদের উভয় রাষ্ট্র সফরের উপরও গুরুত্বারোপ করেন সাকি। ব্রিফিংকালে ভারতের সীমান্তে চীনের আগ্রাসী আচরণ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমেরিকা সার্বক্ষণিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। আমরা এই সীমান্ত বিরোধের আলোচনার মাধ্যমে এবং শান্তিপূর্ণ নিষ্পত্তিকে সমর্থন করি। আমরা এই অঞ্চলে চীনের আচরণকে কীভাবে দেখি সে সম্পর্কে আমরা বরাবরই খুব স্পষ্ট ছিলাম। প্রতিবেশীদের ভয় দেখানোর যে কৌশল চীন নিয়েছে, তা নিয়ে আমরা উদ্বীগ্ন।” খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক