০৪:৪২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মোদীর নেতৃত্বে প্রথম ভারত-মধ্য এশিয়া সম্মেলন আগামীকাল

প্রতিবেশীদের সঙ্গে মেলবন্ধনকে বৃহত্তর পরিসরে দৃঢ় করার লক্ষ্যে আরও উদ্যোগী ভারত। ২৭শে জানুয়ারি ভারতের সঙ্গে মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর সামিট হওয়ার কথা রয়েছে। আর ভার্চুয়াল মাধ্যমে সেই সামিটে আহ্বান করছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আগেই জানা গিয়েছিলো, এবার করোনা পরিস্থিতির জেরে ২৬শে জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে মূখ্য অতিথি হিসাবে কোনও বিদেশি অতিথি থাকবেন না। এদিকে ভারতের তরফে আগে কাজাকিস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, তুর্কেমেনিস্তান এবং উজবেকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। কিন্তু এনিয়ে ইতিবাচক সাড়া না মেললেও প্রথম ভারত-মধ্য এশিয়া শীর্ষ সম্মেলন আয়োজনে তেমন বেগ পেতে হচ্ছেনা।

ভারতের পররাষ্ট্র দপ্তর সূত্রে খবর, ভার্চুয়াল সামিটে কাজাকিস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, তুর্কেমেনিস্তান ও উজবেকিস্তানের প্রেসিডেন্টরা অংশ নেবেন। এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন কূটনৈতিক বিশ্লেষক মহল।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রে খবর, ভারত ও মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ককে এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সবরকম চেষ্টা চলছে। তারই প্রতিফলন ঘটতে পারে এবারের সামিটে। আঞ্চলিক ঘটনাপ্রবাহের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক নানা বিষয় নিয়েও আলোচনা হবে এই সামিটে।

এদিকে ২০১৫ সালে মোদী মধ্য এশিয়ার একাধিক দেশ ঘুরে এসেছিলেন। সেই সম্পর্ককে আরও একবার সুদৃঢ় করতে চাইছে ভারত। এদিকে গতবছরের ১০ই নভেম্বর মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর জাতীয় সুরক্ষা সচিব পর্যায়ের একদফা আলোচনা হয়েছিল। তখন আফগানিস্তান প্রসঙ্গও উঠে আসে। এবার একেবারে নরেন্দ্র মোদীর আহ্বানে সেন্ট্রাল এশিয়ার দেশগুলো ভারতের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

মোদীর নেতৃত্বে প্রথম ভারত-মধ্য এশিয়া সম্মেলন আগামীকাল

প্রকাশ: ০৮:২৭:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২

প্রতিবেশীদের সঙ্গে মেলবন্ধনকে বৃহত্তর পরিসরে দৃঢ় করার লক্ষ্যে আরও উদ্যোগী ভারত। ২৭শে জানুয়ারি ভারতের সঙ্গে মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর সামিট হওয়ার কথা রয়েছে। আর ভার্চুয়াল মাধ্যমে সেই সামিটে আহ্বান করছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আগেই জানা গিয়েছিলো, এবার করোনা পরিস্থিতির জেরে ২৬শে জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে মূখ্য অতিথি হিসাবে কোনও বিদেশি অতিথি থাকবেন না। এদিকে ভারতের তরফে আগে কাজাকিস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, তুর্কেমেনিস্তান এবং উজবেকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। কিন্তু এনিয়ে ইতিবাচক সাড়া না মেললেও প্রথম ভারত-মধ্য এশিয়া শীর্ষ সম্মেলন আয়োজনে তেমন বেগ পেতে হচ্ছেনা।

ভারতের পররাষ্ট্র দপ্তর সূত্রে খবর, ভার্চুয়াল সামিটে কাজাকিস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, তুর্কেমেনিস্তান ও উজবেকিস্তানের প্রেসিডেন্টরা অংশ নেবেন। এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন কূটনৈতিক বিশ্লেষক মহল।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রে খবর, ভারত ও মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ককে এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সবরকম চেষ্টা চলছে। তারই প্রতিফলন ঘটতে পারে এবারের সামিটে। আঞ্চলিক ঘটনাপ্রবাহের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক নানা বিষয় নিয়েও আলোচনা হবে এই সামিটে।

এদিকে ২০১৫ সালে মোদী মধ্য এশিয়ার একাধিক দেশ ঘুরে এসেছিলেন। সেই সম্পর্ককে আরও একবার সুদৃঢ় করতে চাইছে ভারত। এদিকে গতবছরের ১০ই নভেম্বর মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর জাতীয় সুরক্ষা সচিব পর্যায়ের একদফা আলোচনা হয়েছিল। তখন আফগানিস্তান প্রসঙ্গও উঠে আসে। এবার একেবারে নরেন্দ্র মোদীর আহ্বানে সেন্ট্রাল এশিয়ার দেশগুলো ভারতের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক