০৯:২৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জলবায়ু অংশীদারিত্ব জোরদারের সিদ্ধান্ত ইইউ-ভারতের

পরিচ্ছন্ন শক্তি এবং জলবায়ু অংশীদারিত্ব খাতে সম্পর্ক জোরদারের অঙ্গীকার করেছে ভারত ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন। গত ০১ ডিসেম্বর, বুধবার, ভারত-ইইউ এনার্জি প্যানেল একটি মিটিংয়ে নীতিগত এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ফলে, আগামী ২০২৩ সাল অবধি একটি বিশদ কর্ম কর্মসূচি গ্রহণে সম্মত হয়েছে দু পক্ষ। সর্বপ্রথম ২০১৬ সালে শক্তি এবং জলবায়ু অংশীদারিত্ব বাস্তবায়নের পদক্ষেপ নিয়েছিলো ভারত ও ইইউ।

সাম্প্রতিক বছর গুলোতে সম্পর্ক বাড়ানোর অভিপ্রায় দেখাচ্ছে ভারত ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এমতাবস্থায়, জলবায়ু সংক্রান্ত পদক্ষেপ এবং সাশ্রয়ী, পরিচ্ছন্ন ও নিরাপদ শক্তি নিশ্চিত করার বিষয়ে গভীরভাবে লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে দুই পক্ষ।

গতকালের অনুষ্ঠিত বৈঠকটিতে ভারতের পক্ষে অংশ নিয়েছিলো ভারতীয় পররাষ্ট্র দপ্তর, বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়, নবায়নযোগ্য শক্তি মন্ত্রণালয়, পেট্টোলিয়াম ও প্রাকৃতিক গ্যাস মন্ত্রণালয় এবং জ্বালানী শক্তি দপ্তরের মহাপরিচালক ও অন্যান্য সিনিয়র কর্মকর্তাগণ। অন্যদিকে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষে বৈঠকে অংশ নেয় ইউরোপীয় কমিশন।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ভারতের পক্ষে পররাষ্ট্র দপ্তরের সচিব (পশ্চিম) রীনাত সান্ধু এবং ইউরোপীয় কমিশনের পক্ষে ডেপুটি ডিরেক্টর-জেনারেল ফর এনার্জি জনাব মেচথিল্ড ওয়ার্সডরফার।

পরবর্তীতে বৈঠক শেষে একটি যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়। বিবৃতি অনুসারে দেখা যায়, প্যানেল প্রায় শূন্য শক্তি বিল্ডিং, বিল্ডিংয়ের জন্য স্মার্ট প্রস্তুতি সূচক, ফ্লোটিং সোলার, থার্মাল সোলার এবং অফশোর উইন্ড সহ নবায়নযোগ্য শক্তি সহ শক্তি দক্ষতার ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা বৃদ্ধিতে সম্মত হয়েছে।

এছাড়াও, আন্তর্জাতিক সৌর জোটে সহযোগিতা, সবুজ হাইড্রোজেন; গ্রিড ইন্টিগ্রেশন, স্মার্ট গ্রিড, স্টোরেজ, পাওয়ার মার্কেট ডিজাইন, ইন্টারকানেকশন, কোল্ড চেইন এবং টেকসই অর্থায়ন সহ বিভিন্ন খাতে সম্পর্ক জোরদারে সম্মত হয়েছে উভয় পক্ষ।

পাশাপাশি শক্তিশালী এই সহযোগিতার অংশ হিসেবে ভারত-ইইউ সম্পর্কের নতুন মাত্রা যোগ হতে চলেছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

নিম্নে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয় তুলে ধরা হলো:

  • আগামী বছরের প্রথমার্ধে ভারত-ইইউ অফশোর উইন্ড বিজনেস এবং ইনভেস্টমেন্ট সামিট, ইউরোপীয় এবং ভারতীয় কোম্পানী সমূহের একটি প্রদর্শনী, B2B সুবিধা এবং অফশোর বায়ুর খরচ হ্রাস এবং অফশোর বায়ু অর্থায়নের সেশন সহ বিভিন্ন প্রোগ্রাম আয়োজন।
  • স্মার্ট গ্রিড রেপ্লিকেশনের উপর ভারত-ইইউ উচ্চ স্তরের সংলাপ আয়োজন এবং ভারতে স্মার্ট গ্রিড প্রকল্প সমূহকে প্রতিলিপি এবং উচ্চতর করার জন্য সম্ভাব্য সুযোগ এবং বাধাগুলি চিহ্নিত করণ।
  • ভারত-ইইউ হাইড্রোজেন ফোরাম পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তির উচ্চ অংশ সহ শক্তি ব্যবস্থায় হাইড্রোজেনের ভূমিকার উপর সর্বোত্তম অনুশীলন/নীতি বিনিময়ের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করবে।
  • ক্লিন এনার্জি প্ল্যাটফর্মে ভারত-ইইউ অর্থায়ন, বিনিয়োগ, শক্তি দক্ষতা এবং নবায়নযোগ্য শক্তির ক্ষেত্রে বিনিয়োগকে উত্সাহিত করা।

আলোচনাকালে আন্তর্জাতিক সৌর জোটে অধিক পরিমাণ ইইউ রাষ্ট্রের যোগদানের বিষয়টি ইতিবাচক ভাবে দেখছে প্যানেল। ইইউ সম্প্রতি বিভিন্ন প্রকল্পে প্রায় ১ মিলিয়ন ইউরো অর্থায়ন করেছে, যার লক্ষ্য ইইউ, এর সদস্য রাষ্ট্র এবং আন্তর্জাতিক সৌর জোটের সাথে এর একাডেমিক, ব্যবসায়িক এবং আর্থিক সম্প্রদায়ের সম্পৃক্ততাকে আরও শক্তিশালী করা।

তাছাড়া, উপরোক্ত বৈঠকে ভারত আইএসএ-এর ওয়ান সান ওয়ান ওয়ার্ল্ড ওয়ান গ্রিড ইনিশিয়েটিভ-এর গুরুত্বের ওপর জোর দিয়েছে বলে যৌথ প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে। একই সঙ্গে, ভারত এবং ইইউ উভয়েই জি২০ এর ফ্রেমে পরিচ্ছন্ন শক্তির উপর ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্ক জোরদার করতে সম্মত হয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

জলবায়ু অংশীদারিত্ব জোরদারের সিদ্ধান্ত ইইউ-ভারতের

প্রকাশ: ১২:৩৮:৪৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর ২০২১

পরিচ্ছন্ন শক্তি এবং জলবায়ু অংশীদারিত্ব খাতে সম্পর্ক জোরদারের অঙ্গীকার করেছে ভারত ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন। গত ০১ ডিসেম্বর, বুধবার, ভারত-ইইউ এনার্জি প্যানেল একটি মিটিংয়ে নীতিগত এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ফলে, আগামী ২০২৩ সাল অবধি একটি বিশদ কর্ম কর্মসূচি গ্রহণে সম্মত হয়েছে দু পক্ষ। সর্বপ্রথম ২০১৬ সালে শক্তি এবং জলবায়ু অংশীদারিত্ব বাস্তবায়নের পদক্ষেপ নিয়েছিলো ভারত ও ইইউ।

সাম্প্রতিক বছর গুলোতে সম্পর্ক বাড়ানোর অভিপ্রায় দেখাচ্ছে ভারত ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এমতাবস্থায়, জলবায়ু সংক্রান্ত পদক্ষেপ এবং সাশ্রয়ী, পরিচ্ছন্ন ও নিরাপদ শক্তি নিশ্চিত করার বিষয়ে গভীরভাবে লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে দুই পক্ষ।

গতকালের অনুষ্ঠিত বৈঠকটিতে ভারতের পক্ষে অংশ নিয়েছিলো ভারতীয় পররাষ্ট্র দপ্তর, বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়, নবায়নযোগ্য শক্তি মন্ত্রণালয়, পেট্টোলিয়াম ও প্রাকৃতিক গ্যাস মন্ত্রণালয় এবং জ্বালানী শক্তি দপ্তরের মহাপরিচালক ও অন্যান্য সিনিয়র কর্মকর্তাগণ। অন্যদিকে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষে বৈঠকে অংশ নেয় ইউরোপীয় কমিশন।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ভারতের পক্ষে পররাষ্ট্র দপ্তরের সচিব (পশ্চিম) রীনাত সান্ধু এবং ইউরোপীয় কমিশনের পক্ষে ডেপুটি ডিরেক্টর-জেনারেল ফর এনার্জি জনাব মেচথিল্ড ওয়ার্সডরফার।

পরবর্তীতে বৈঠক শেষে একটি যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়। বিবৃতি অনুসারে দেখা যায়, প্যানেল প্রায় শূন্য শক্তি বিল্ডিং, বিল্ডিংয়ের জন্য স্মার্ট প্রস্তুতি সূচক, ফ্লোটিং সোলার, থার্মাল সোলার এবং অফশোর উইন্ড সহ নবায়নযোগ্য শক্তি সহ শক্তি দক্ষতার ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা বৃদ্ধিতে সম্মত হয়েছে।

এছাড়াও, আন্তর্জাতিক সৌর জোটে সহযোগিতা, সবুজ হাইড্রোজেন; গ্রিড ইন্টিগ্রেশন, স্মার্ট গ্রিড, স্টোরেজ, পাওয়ার মার্কেট ডিজাইন, ইন্টারকানেকশন, কোল্ড চেইন এবং টেকসই অর্থায়ন সহ বিভিন্ন খাতে সম্পর্ক জোরদারে সম্মত হয়েছে উভয় পক্ষ।

পাশাপাশি শক্তিশালী এই সহযোগিতার অংশ হিসেবে ভারত-ইইউ সম্পর্কের নতুন মাত্রা যোগ হতে চলেছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

নিম্নে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয় তুলে ধরা হলো:

  • আগামী বছরের প্রথমার্ধে ভারত-ইইউ অফশোর উইন্ড বিজনেস এবং ইনভেস্টমেন্ট সামিট, ইউরোপীয় এবং ভারতীয় কোম্পানী সমূহের একটি প্রদর্শনী, B2B সুবিধা এবং অফশোর বায়ুর খরচ হ্রাস এবং অফশোর বায়ু অর্থায়নের সেশন সহ বিভিন্ন প্রোগ্রাম আয়োজন।
  • স্মার্ট গ্রিড রেপ্লিকেশনের উপর ভারত-ইইউ উচ্চ স্তরের সংলাপ আয়োজন এবং ভারতে স্মার্ট গ্রিড প্রকল্প সমূহকে প্রতিলিপি এবং উচ্চতর করার জন্য সম্ভাব্য সুযোগ এবং বাধাগুলি চিহ্নিত করণ।
  • ভারত-ইইউ হাইড্রোজেন ফোরাম পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তির উচ্চ অংশ সহ শক্তি ব্যবস্থায় হাইড্রোজেনের ভূমিকার উপর সর্বোত্তম অনুশীলন/নীতি বিনিময়ের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করবে।
  • ক্লিন এনার্জি প্ল্যাটফর্মে ভারত-ইইউ অর্থায়ন, বিনিয়োগ, শক্তি দক্ষতা এবং নবায়নযোগ্য শক্তির ক্ষেত্রে বিনিয়োগকে উত্সাহিত করা।

আলোচনাকালে আন্তর্জাতিক সৌর জোটে অধিক পরিমাণ ইইউ রাষ্ট্রের যোগদানের বিষয়টি ইতিবাচক ভাবে দেখছে প্যানেল। ইইউ সম্প্রতি বিভিন্ন প্রকল্পে প্রায় ১ মিলিয়ন ইউরো অর্থায়ন করেছে, যার লক্ষ্য ইইউ, এর সদস্য রাষ্ট্র এবং আন্তর্জাতিক সৌর জোটের সাথে এর একাডেমিক, ব্যবসায়িক এবং আর্থিক সম্প্রদায়ের সম্পৃক্ততাকে আরও শক্তিশালী করা।

তাছাড়া, উপরোক্ত বৈঠকে ভারত আইএসএ-এর ওয়ান সান ওয়ান ওয়ার্ল্ড ওয়ান গ্রিড ইনিশিয়েটিভ-এর গুরুত্বের ওপর জোর দিয়েছে বলে যৌথ প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে। একই সঙ্গে, ভারত এবং ইইউ উভয়েই জি২০ এর ফ্রেমে পরিচ্ছন্ন শক্তির উপর ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্ক জোরদার করতে সম্মত হয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক