০৩:৩৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সর্বজনীন টিকাকরণ করোনা রোধের চাবিকাঠি: ভারত

বিশ্বব্যাপী সার্বজনীন টিকা প্রয়োগের মাধ্যমেই করোনা মহামারী বিস্তার রোধ সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন ভারতীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। গত ১৪ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার, ওয়াশিংটন ডিসিতে আয়োজিত আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) বার্ষিক সভায় সংস্থাটির আইএমএফসি বোর্ড অফ গভর্নরদের সঙ্গে বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি। বৈঠকে আইএমএফ-এর সদস্য ভুক্ত ১৯০টি দেশের প্রতিনিধিত্বকারী গভর্নর/ বিকল্প গভর্নররা উপস্থিত ছিলেন।

তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, “নিম্ন আয়ের দেশ এবং উন্নত দেশগুলির টিকাকরণের পার্থক্য যথেষ্ট উদ্বেগজনক। তাই টিকাকরণে এই বৈষম্য মোকাবিলা করা অত্যন্ত জরুরি। কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়লাভ করা অপরিহার্য। কীভাবে সাশ্রয়ী মূল্যে সহজলভ্যভাবে সাধারণ মানুষের কাছে চিকিৎসা পরিষেবা দ্রুত পৌঁছে দেওয়া যায় এবং চিকিৎসা ক্ষেত্রে গবেষণামূলক কাজ সকল দেশের মধ্যে ভাগ করে নেওয়া যায়, তা আমাদেরকেই খুঁজে বের করতে হবে।”

ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বৈঠকে অংশগ্রহণকারীদের সামনে বলেন, “মহামারীর সঙ্কট সত্ত্বেও ভারত পরিকাঠামোগত সংস্কার অব্যাহত রেখেছে। কৃষি, শ্রম এবং আর্থিক ক্ষেত্র সহ একাধিক বিষয়ে সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করায় অর্থনীতির গতি বৃদ্ধি পাবে বলে আমরা আশাবাদী।”

এসময়, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা সহ প্রযুক্তিগত সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়ে অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিনিধির উদ্দেশ্যে আহবান জানান সীতারামন।

উল্লেখ্য, প্রতি বছর দুবার অনুষ্ঠিত হয় আইএমএফসি-এর বৈঠক। একবার এপ্রিল মাসে ফান্ড-ব্যাঙ্ক স্প্রিং –এর বৈঠক বসে। আরেকটি, অক্টোবর মাসে বার্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে কমিটি বিশ্ব অর্থনীতিকে প্রভাবিত করতে পারে এমন সাধারণ উদ্বেগের বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করে এবং আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডারকে কাজের দিশা দেখায়।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

সর্বজনীন টিকাকরণ করোনা রোধের চাবিকাঠি: ভারত

প্রকাশ: ০৪:১২:৪৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১

বিশ্বব্যাপী সার্বজনীন টিকা প্রয়োগের মাধ্যমেই করোনা মহামারী বিস্তার রোধ সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন ভারতীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। গত ১৪ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার, ওয়াশিংটন ডিসিতে আয়োজিত আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) বার্ষিক সভায় সংস্থাটির আইএমএফসি বোর্ড অফ গভর্নরদের সঙ্গে বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি। বৈঠকে আইএমএফ-এর সদস্য ভুক্ত ১৯০টি দেশের প্রতিনিধিত্বকারী গভর্নর/ বিকল্প গভর্নররা উপস্থিত ছিলেন।

তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, “নিম্ন আয়ের দেশ এবং উন্নত দেশগুলির টিকাকরণের পার্থক্য যথেষ্ট উদ্বেগজনক। তাই টিকাকরণে এই বৈষম্য মোকাবিলা করা অত্যন্ত জরুরি। কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়লাভ করা অপরিহার্য। কীভাবে সাশ্রয়ী মূল্যে সহজলভ্যভাবে সাধারণ মানুষের কাছে চিকিৎসা পরিষেবা দ্রুত পৌঁছে দেওয়া যায় এবং চিকিৎসা ক্ষেত্রে গবেষণামূলক কাজ সকল দেশের মধ্যে ভাগ করে নেওয়া যায়, তা আমাদেরকেই খুঁজে বের করতে হবে।”

ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বৈঠকে অংশগ্রহণকারীদের সামনে বলেন, “মহামারীর সঙ্কট সত্ত্বেও ভারত পরিকাঠামোগত সংস্কার অব্যাহত রেখেছে। কৃষি, শ্রম এবং আর্থিক ক্ষেত্র সহ একাধিক বিষয়ে সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করায় অর্থনীতির গতি বৃদ্ধি পাবে বলে আমরা আশাবাদী।”

এসময়, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা সহ প্রযুক্তিগত সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়ে অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিনিধির উদ্দেশ্যে আহবান জানান সীতারামন।

উল্লেখ্য, প্রতি বছর দুবার অনুষ্ঠিত হয় আইএমএফসি-এর বৈঠক। একবার এপ্রিল মাসে ফান্ড-ব্যাঙ্ক স্প্রিং –এর বৈঠক বসে। আরেকটি, অক্টোবর মাসে বার্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে কমিটি বিশ্ব অর্থনীতিকে প্রভাবিত করতে পারে এমন সাধারণ উদ্বেগের বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করে এবং আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডারকে কাজের দিশা দেখায়।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক