০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্টার্টআপ-উদ্ভাবনে বিশেষ ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরী করুন: ভারত

স্টার্টআপ এবং উদ্ভাবন খাতকে এগিয়ে নেয়ার জন্য একটি নতুন বিশেষ ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরীর আহবান জানিয়েছে ভারত। গত ১৪ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার, কাজাখস্তানে আয়োজিত এসসিও ভূক্ত সদস্য রাষ্ট্রসমূহের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রীদের ২০ তম সম্মেলনে অংশ নিয়ে এ আহবান জানান ভারতের কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্প প্রতিমন্ত্রী অনুপ্রিয়া প্যাটেল।

পাশাপাশি স্বাস্থ্যখাতে কৌশলগত অংশীদারিত্ব জোরদারের জন্য আলাদা একটি বিশেষজ্ঞ ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরীর পরামর্শও দেন তিনি। প্যাটেল বলেন, “মহামারী পরবর্তী সময়ে আমাদের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে হলে স্টার্টআপ এবং উদ্ভাবন খাতে আমাদেরকে অবশ্যই সহযোগিতা জোরদার করতে হবে।”

এসময়, আগামী ২৭ ও ২৮ অক্টোবর ভারতে অনুষ্ঠিতব্য দ্বিতীয় স্টার্টআপ ফোরামে অংশ নেয়ার জন্য এসসিও ভূক্ত সকল সদস্য রাষ্ট্রসমূহকে আমন্ত্রণ জানান তিনি।

আলোচনাকালে প্রযুক্তিগত সম্পর্ক বৃদ্ধির আহবান জানিয়ে প্যাটেল বলেন, “উন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ফারাক লক্ষ্য করা যায়। এই ব্যবধান দূরীকরণের লক্ষ্যে ডিজিটাল সক্ষমতা তৈরী করতে হব।”

তাছাড়া, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা এবং পরিবেশের সুরক্ষার বিষয়েও কথা বলেন মোদী মন্ত্রীসভার গুরুত্বপূর্ণ এই মন্ত্রী। তিনি বলেন, “জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় আমাদেরকে খুবই সাবধানে চলতে হবে। পরিবেশের স্বার্থ সুরক্ষার দিকে যেমন মনযোগ দিতে হবে, ব্যবসায়িক উৎকর্ষের দিকেও মনযোগ দিতে হবে। দুটোকে সাংঘর্ষিক করা যাবেনা।”

বক্তব্যের শেষ ধাপে এসে এসসিও সদস্যদের প্রতি ন্যায়সঙ্গত, অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং উন্নয়নমুখী সম্পর্ক জোরদারের আহবান জানান অনুপ্রিয়া। ভার্চুয়াল মাধ্যমে আয়োজিত এই বৈঠকে ভারত ছাড়াও, এসসিও কমিটির নেতৃবৃন্দ, চীন, কিরগিজস্তান, কাজাখস্তান, পাকিস্তান, রাশিয়া, তাজিকিস্তান ও উজবেকিস্তানের প্রতিনিধি দলের প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

নিউজ গার্ডিয়ান/ এফএম/

ট্যাগ:

স্টার্টআপ-উদ্ভাবনে বিশেষ ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরী করুন: ভারত

প্রকাশ: ০৪:০৬:১০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১

স্টার্টআপ এবং উদ্ভাবন খাতকে এগিয়ে নেয়ার জন্য একটি নতুন বিশেষ ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরীর আহবান জানিয়েছে ভারত। গত ১৪ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার, কাজাখস্তানে আয়োজিত এসসিও ভূক্ত সদস্য রাষ্ট্রসমূহের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রীদের ২০ তম সম্মেলনে অংশ নিয়ে এ আহবান জানান ভারতের কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্প প্রতিমন্ত্রী অনুপ্রিয়া প্যাটেল।

পাশাপাশি স্বাস্থ্যখাতে কৌশলগত অংশীদারিত্ব জোরদারের জন্য আলাদা একটি বিশেষজ্ঞ ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরীর পরামর্শও দেন তিনি। প্যাটেল বলেন, “মহামারী পরবর্তী সময়ে আমাদের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে হলে স্টার্টআপ এবং উদ্ভাবন খাতে আমাদেরকে অবশ্যই সহযোগিতা জোরদার করতে হবে।”

এসময়, আগামী ২৭ ও ২৮ অক্টোবর ভারতে অনুষ্ঠিতব্য দ্বিতীয় স্টার্টআপ ফোরামে অংশ নেয়ার জন্য এসসিও ভূক্ত সকল সদস্য রাষ্ট্রসমূহকে আমন্ত্রণ জানান তিনি।

আলোচনাকালে প্রযুক্তিগত সম্পর্ক বৃদ্ধির আহবান জানিয়ে প্যাটেল বলেন, “উন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ফারাক লক্ষ্য করা যায়। এই ব্যবধান দূরীকরণের লক্ষ্যে ডিজিটাল সক্ষমতা তৈরী করতে হব।”

তাছাড়া, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা এবং পরিবেশের সুরক্ষার বিষয়েও কথা বলেন মোদী মন্ত্রীসভার গুরুত্বপূর্ণ এই মন্ত্রী। তিনি বলেন, “জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় আমাদেরকে খুবই সাবধানে চলতে হবে। পরিবেশের স্বার্থ সুরক্ষার দিকে যেমন মনযোগ দিতে হবে, ব্যবসায়িক উৎকর্ষের দিকেও মনযোগ দিতে হবে। দুটোকে সাংঘর্ষিক করা যাবেনা।”

বক্তব্যের শেষ ধাপে এসে এসসিও সদস্যদের প্রতি ন্যায়সঙ্গত, অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং উন্নয়নমুখী সম্পর্ক জোরদারের আহবান জানান অনুপ্রিয়া। ভার্চুয়াল মাধ্যমে আয়োজিত এই বৈঠকে ভারত ছাড়াও, এসসিও কমিটির নেতৃবৃন্দ, চীন, কিরগিজস্তান, কাজাখস্তান, পাকিস্তান, রাশিয়া, তাজিকিস্তান ও উজবেকিস্তানের প্রতিনিধি দলের প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

নিউজ গার্ডিয়ান/ এফএম/