০৫:২৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঘাটাইলে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জমি দখলের অভিযোগ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বিরুদ্ধে

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে রসুলপুর ইউনিয়নের সরাবাড়ি গ্রামে এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বিরুদ্ধে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মোতালেব হোসেন বাদী হয়ে জবর দখল ও ভাংচুরের অভিযোগে ৫ জনসহ অজ্ঞাত নামা ১০/১২ জনকে আসামী করে ঘাটাইল থানায় মামলা (নং ১৩, তারিখ: ২১/০৬/২০) দায়ের করেছেন।

জানা গেছে দীর্ঘ দিন ধরে জমি বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে আদালতে একটি মোকদ্দমা চলছে। শান্তি ভঙ্গের আশঙ্কায় ফৌজদারি কার্যবিধি আইনে ঘটনাস্থলে গত ১১ জানুয়ারি তারিখে ১৪৪ ধারা মতে নোটিশ জারি করে পুলিশ। কিন্তু প্রতিপক্ষ হুমায়ুন কবীর গংরা ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে দোকান ঘরের বেড়ার টিন ভেঙ্গে সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দেয়।

এর আগে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেয় আদালত। পরে সরেজমিনে তদন্ত করে সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোছা. নুর নাহার বেগম ২৭ জানুয়ারি তারিখে মোতালেব গংদের পক্ষে রায় দিয়ে বিজ্ঞ আদালতের কাছে তদন্ত রিপোট প্রেরন করেন।

ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম জানান, বহুদিন ধরে মোতালেব হোসেন গংরা এ জমি ভোগ দখলে রয়েছে। তাদের নামে হালসনের রেকর্ডও আছে। ওই দাগের মধ্যে ৫০০ গজ দুরে রয়েছে প্রতিপক্ষ হুমায়ুন গংদের জমি। ওই জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। কিন্তু মোতালেব হোসেনের জমিটি বাজারের মধ্যে রাস্তার পাশে হওয়ায় সেখানে দোকান ঘর নির্মাণ করে ভাড়া দেয়।

স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা এছাক আলী জানান, শত বছর ধরে তারা জমিটা খাচ্ছে। এখানে প্রতিপক্ষের দাবি সঠিক না।

সরেজমিনে গিয়ে প্রতিপক্ষ হুমায়ুন কবীরকে পাওয়া যায়নি। পরে তার সেল ফোনে (০১৭০৪৭০….) যোগাযোগ করলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

অপরদিকে পেশি শক্তি ব্যবহার করে ভাংচুর ও জবরদখলের পর মুক্তিযোদ্ধার নামে সাইনবোর্ড দেয়ায় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

ঘাটাইল থানা অফিসার ইনচার্জ মো: মাকছুদুল আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ট্যাগ:

ঘাটাইলে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জমি দখলের অভিযোগ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বিরুদ্ধে

প্রকাশ: ০৬:২৫:৪৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জুন ২০২০

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে রসুলপুর ইউনিয়নের সরাবাড়ি গ্রামে এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বিরুদ্ধে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মোতালেব হোসেন বাদী হয়ে জবর দখল ও ভাংচুরের অভিযোগে ৫ জনসহ অজ্ঞাত নামা ১০/১২ জনকে আসামী করে ঘাটাইল থানায় মামলা (নং ১৩, তারিখ: ২১/০৬/২০) দায়ের করেছেন।

জানা গেছে দীর্ঘ দিন ধরে জমি বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে আদালতে একটি মোকদ্দমা চলছে। শান্তি ভঙ্গের আশঙ্কায় ফৌজদারি কার্যবিধি আইনে ঘটনাস্থলে গত ১১ জানুয়ারি তারিখে ১৪৪ ধারা মতে নোটিশ জারি করে পুলিশ। কিন্তু প্রতিপক্ষ হুমায়ুন কবীর গংরা ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে দোকান ঘরের বেড়ার টিন ভেঙ্গে সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দেয়।

এর আগে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেয় আদালত। পরে সরেজমিনে তদন্ত করে সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোছা. নুর নাহার বেগম ২৭ জানুয়ারি তারিখে মোতালেব গংদের পক্ষে রায় দিয়ে বিজ্ঞ আদালতের কাছে তদন্ত রিপোট প্রেরন করেন।

ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম জানান, বহুদিন ধরে মোতালেব হোসেন গংরা এ জমি ভোগ দখলে রয়েছে। তাদের নামে হালসনের রেকর্ডও আছে। ওই দাগের মধ্যে ৫০০ গজ দুরে রয়েছে প্রতিপক্ষ হুমায়ুন গংদের জমি। ওই জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। কিন্তু মোতালেব হোসেনের জমিটি বাজারের মধ্যে রাস্তার পাশে হওয়ায় সেখানে দোকান ঘর নির্মাণ করে ভাড়া দেয়।

স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা এছাক আলী জানান, শত বছর ধরে তারা জমিটা খাচ্ছে। এখানে প্রতিপক্ষের দাবি সঠিক না।

সরেজমিনে গিয়ে প্রতিপক্ষ হুমায়ুন কবীরকে পাওয়া যায়নি। পরে তার সেল ফোনে (০১৭০৪৭০….) যোগাযোগ করলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

অপরদিকে পেশি শক্তি ব্যবহার করে ভাংচুর ও জবরদখলের পর মুক্তিযোদ্ধার নামে সাইনবোর্ড দেয়ায় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

ঘাটাইল থানা অফিসার ইনচার্জ মো: মাকছুদুল আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।