০৫:৪১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চায়নের আহ্বান ভারতের

বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ লাইফলাইন হিসেবে রাশিয়া-ইউক্রেনের খাদ্যশস্য চুক্তি বা ব্ল্যাক সি গ্রেইন ইনিশিয়েটিভের (বিএসজিআই) মেয়াদ আবারও বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে ভারত। বিএসজিআই নবায়ন করা না হলে ভারত ও বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলো যে ক্রমবর্ধমান ঝুঁকিতে পড়বে তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দেশটি।

১৭ জুলাই থেকে ব্ল্যাক সি গ্রেইন ইনিশিয়েটিভ চুক্তি রাশিয়ার বন্ধ করার সিদ্ধান্তের কারণে গমের সুষ্ঠু সরবরাহ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা এবং বিশ্বজুড়ে লাখ লাখ মানুষের খাদ্য ঘাটতির বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা।

বিএসজিআই চুক্তি নবায়ন না হলে শুধুমাত্র মানবসৃষ্ট মানবিক বিপর্যয়-ই ঘটবে না বরং বর্তমান বৈশ্বিক মুদ্রাস্ফীতির উর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণও ব্যহত হবে বলে মন্তব্য করেছেন তারা।

বিএসজিআই-এর অধীনে ৩২ মিলিয়ন মেট্রিক টন খাদ্যসামগ্রী তিনটি ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে তিনটি মহাদেশের ৪৫টি দেশে রপ্তানি করা হয়েছে যা– ব্ল্যাক সির মাধ্যমে গম স্বল্পোন্নত অর্থনীতিতে রপ্তানি করা হয়, ফলে পরিস্থিতি যুদ্ধ-পূর্ব স্তর থেকে অনেকাংশে অপরিবর্তিত ছিল।

বিশেষ করে, আফগানিস্তান, ইথিওপিয়া, কেনিয়া, সোমালিয়া, সুদান এবং ইয়েমেনে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির মানবিক কার্যক্রম সম্পূর্ণভাবে ব্যাহত হবে এবং লাখ লাখ মানুষ। বিশেষত; শিশুরা খাদ্য ঘাটতির সম্মুখীন হবে। তাই ইউক্রেনীয় এবং রাশিয়ান খাদ্য ও সার রপ্তানি অব্যাহত রাখা বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এ প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা, জোরালোভাবে এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সমর্থন করে। কারণ রাশিয়া থেকে অর্থপ্রেরণ, বীমা এবং রাশিয়ার নিজস্ব কৃষিপণ্য রপ্তানির বর্তমানে প্রযোজ্য নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের মাধ্যমে বিএসজিআই চুক্তির নবায়ন বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তার জন্য অত্যাবশ্যক। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চায়নের আহ্বান ভারতের

প্রকাশ: ০২:৩৮:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুলাই ২০২৩

বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ লাইফলাইন হিসেবে রাশিয়া-ইউক্রেনের খাদ্যশস্য চুক্তি বা ব্ল্যাক সি গ্রেইন ইনিশিয়েটিভের (বিএসজিআই) মেয়াদ আবারও বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে ভারত। বিএসজিআই নবায়ন করা না হলে ভারত ও বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলো যে ক্রমবর্ধমান ঝুঁকিতে পড়বে তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দেশটি।

১৭ জুলাই থেকে ব্ল্যাক সি গ্রেইন ইনিশিয়েটিভ চুক্তি রাশিয়ার বন্ধ করার সিদ্ধান্তের কারণে গমের সুষ্ঠু সরবরাহ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা এবং বিশ্বজুড়ে লাখ লাখ মানুষের খাদ্য ঘাটতির বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা।

বিএসজিআই চুক্তি নবায়ন না হলে শুধুমাত্র মানবসৃষ্ট মানবিক বিপর্যয়-ই ঘটবে না বরং বর্তমান বৈশ্বিক মুদ্রাস্ফীতির উর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণও ব্যহত হবে বলে মন্তব্য করেছেন তারা।

বিএসজিআই-এর অধীনে ৩২ মিলিয়ন মেট্রিক টন খাদ্যসামগ্রী তিনটি ইউক্রেনীয় বন্দর থেকে তিনটি মহাদেশের ৪৫টি দেশে রপ্তানি করা হয়েছে যা– ব্ল্যাক সির মাধ্যমে গম স্বল্পোন্নত অর্থনীতিতে রপ্তানি করা হয়, ফলে পরিস্থিতি যুদ্ধ-পূর্ব স্তর থেকে অনেকাংশে অপরিবর্তিত ছিল।

বিশেষ করে, আফগানিস্তান, ইথিওপিয়া, কেনিয়া, সোমালিয়া, সুদান এবং ইয়েমেনে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির মানবিক কার্যক্রম সম্পূর্ণভাবে ব্যাহত হবে এবং লাখ লাখ মানুষ। বিশেষত; শিশুরা খাদ্য ঘাটতির সম্মুখীন হবে। তাই ইউক্রেনীয় এবং রাশিয়ান খাদ্য ও সার রপ্তানি অব্যাহত রাখা বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এ প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা, জোরালোভাবে এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার সমর্থন করে। কারণ রাশিয়া থেকে অর্থপ্রেরণ, বীমা এবং রাশিয়ার নিজস্ব কৃষিপণ্য রপ্তানির বর্তমানে প্রযোজ্য নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের মাধ্যমে বিএসজিআই চুক্তির নবায়ন বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তার জন্য অত্যাবশ্যক। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক