১২:৫৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ভারত আঞ্চলিক রক্ষক: লঙ্কান প্রেসিডেন্ট

শ্রীলঙ্কা খাদ্য ও ওষুধ সহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার জন্য ভারতের কাছ থেকে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারের একটি নতুন অস্থায়ী ঋণ সুবিধা চাইবে। সোমবার দেশটির রাষ্ট্র পরিচালিত ডেইলি নিউজের প্রতিবেদনের বরাতে এ খবর দিয়েছে এনডিটিভি।

সম্প্রতি শ্রীলঙ্কা ৩৩৩ মিলিয়ন ডলার পেয়েছে। এটি অর্থনৈতিক সঙ্কট কাটাতে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) তিন বিলিয়ন বেল আউট প্রোগ্রামের প্রথম ধাপ। এটি দেশটিতে অন্যান্য অংশীদারদের কাছ থেকে অর্থ পেতে সাহায্য করবে।

ডেইলি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘দেশের জন্য প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী, ওষুধ এবং অন্যান্য পণ্য ক্রয়ের জন্য এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারের নতুন অস্থায়ী সুবিধা পাওয়ার জন্য শ্রীলঙ্কার অর্থ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা ভারতের সঙ্গে আলোচনা করেছেন।’

শ্রীলঙ্কার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সেন্টার ফর ব্যাংকিং স্টাডিজ  আয়োজিত এক আলোচনায় দেশটির সাবেক গভর্নর ড. ইন্দ্রজিথ কুমারস্বামী বলেন, ‘আরবিআই থেকে ভারতীয় রুপি অদলবদল সুরক্ষিত করার জন্যও আলোচনা চলছে। পরিমাণ এখনও অনিশ্চিত; এটি হতে পারে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সমতুল্য। এটি এখনও কাজ করা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘এটি শ্রীলঙ্কা-ভারত বাণিজ্যকে সহজতর করবে বলে আশা করা হচ্ছে।’

ইন্দ্রজিথ কুমারস্বামী যোগ করেছেন যে, শ্রীলঙ্কা সরকার গত বছর প্রাপ্ত এক বিলিয়ন ডলারের ক্রেডিট লাইন এবং এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের অধীনে ঋণের পরিশোধের মেয়াদ পাঁচ বছর বাড়ানোর জন্য ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সাথেও আলোচনা শুরু করেছে।

ইন্দ্রজিথ কুমারস্বামী বলেন, ‘আমরা সেই অর্থটি পাঁচ বছরের মেয়াদে নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করছি। এটি এখনও আলোচনার প্রাথমিক স্তরে রয়েছে।’

গত সপ্তাহে অর্থ প্রতিমন্ত্রী রঞ্জিত সিয়ামবালাপিটিয়া বলেছেন যে, শ্রীলঙ্কা আইএমএফ বেলআউট প্যাকেজের প্রথম ধাপে পাওয়া অর্থ থেকে ভারতের ১২১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের ঋণের কিস্তি নিষ্পত্তি করেছে। বছরের পর বছর ধরে চলা অব্যবস্থাপনা এবং ভয়াবহ মহামারীর কারণে শ্রীলঙ্কা একটি বিপর্যয়কর অর্থনৈতিক ও মানবিক সংকটে পতিত হয়েছে।

এখানে ভারতীয় হাইকমিশনের মতে, প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র, পেট্রোলিয়াম, সার, রেলপথের উন্নয়ন, অবকাঠামো, প্রতিরক্ষা খাত এবং পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তির সরবরাহসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ভারত শ্রীলঙ্কায় ৪ বিলিয়ন ডলার মূল্যের ঋণের মেয়াদ প্রসারিত করেছে।

শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে (যিনি আইএমএফ আলোচনার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন) বিশেষভাবে ভারতীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের তার সরকারকে সহায়তা করার জন্য অবদানের কথা উল্লেখ করেছেন।

ভারত তার ‘প্রতিবেশী ফার্স্ট’ নীতির সাথে সামঞ্জস্য রেখে শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক ও মানবিক সংকটের শীর্ষে বহুমুখী সহায়তা বাড়িয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

ভারত আঞ্চলিক রক্ষক: লঙ্কান প্রেসিডেন্ট

প্রকাশ: ০৭:১৭:২৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ ২০২৩

শ্রীলঙ্কা খাদ্য ও ওষুধ সহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার জন্য ভারতের কাছ থেকে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারের একটি নতুন অস্থায়ী ঋণ সুবিধা চাইবে। সোমবার দেশটির রাষ্ট্র পরিচালিত ডেইলি নিউজের প্রতিবেদনের বরাতে এ খবর দিয়েছে এনডিটিভি।

সম্প্রতি শ্রীলঙ্কা ৩৩৩ মিলিয়ন ডলার পেয়েছে। এটি অর্থনৈতিক সঙ্কট কাটাতে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) তিন বিলিয়ন বেল আউট প্রোগ্রামের প্রথম ধাপ। এটি দেশটিতে অন্যান্য অংশীদারদের কাছ থেকে অর্থ পেতে সাহায্য করবে।

ডেইলি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘দেশের জন্য প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী, ওষুধ এবং অন্যান্য পণ্য ক্রয়ের জন্য এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারের নতুন অস্থায়ী সুবিধা পাওয়ার জন্য শ্রীলঙ্কার অর্থ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা ভারতের সঙ্গে আলোচনা করেছেন।’

শ্রীলঙ্কার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সেন্টার ফর ব্যাংকিং স্টাডিজ  আয়োজিত এক আলোচনায় দেশটির সাবেক গভর্নর ড. ইন্দ্রজিথ কুমারস্বামী বলেন, ‘আরবিআই থেকে ভারতীয় রুপি অদলবদল সুরক্ষিত করার জন্যও আলোচনা চলছে। পরিমাণ এখনও অনিশ্চিত; এটি হতে পারে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সমতুল্য। এটি এখনও কাজ করা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘এটি শ্রীলঙ্কা-ভারত বাণিজ্যকে সহজতর করবে বলে আশা করা হচ্ছে।’

ইন্দ্রজিথ কুমারস্বামী যোগ করেছেন যে, শ্রীলঙ্কা সরকার গত বছর প্রাপ্ত এক বিলিয়ন ডলারের ক্রেডিট লাইন এবং এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের অধীনে ঋণের পরিশোধের মেয়াদ পাঁচ বছর বাড়ানোর জন্য ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সাথেও আলোচনা শুরু করেছে।

ইন্দ্রজিথ কুমারস্বামী বলেন, ‘আমরা সেই অর্থটি পাঁচ বছরের মেয়াদে নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করছি। এটি এখনও আলোচনার প্রাথমিক স্তরে রয়েছে।’

গত সপ্তাহে অর্থ প্রতিমন্ত্রী রঞ্জিত সিয়ামবালাপিটিয়া বলেছেন যে, শ্রীলঙ্কা আইএমএফ বেলআউট প্যাকেজের প্রথম ধাপে পাওয়া অর্থ থেকে ভারতের ১২১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের ঋণের কিস্তি নিষ্পত্তি করেছে। বছরের পর বছর ধরে চলা অব্যবস্থাপনা এবং ভয়াবহ মহামারীর কারণে শ্রীলঙ্কা একটি বিপর্যয়কর অর্থনৈতিক ও মানবিক সংকটে পতিত হয়েছে।

এখানে ভারতীয় হাইকমিশনের মতে, প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র, পেট্রোলিয়াম, সার, রেলপথের উন্নয়ন, অবকাঠামো, প্রতিরক্ষা খাত এবং পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তির সরবরাহসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ভারত শ্রীলঙ্কায় ৪ বিলিয়ন ডলার মূল্যের ঋণের মেয়াদ প্রসারিত করেছে।

শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে (যিনি আইএমএফ আলোচনার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন) বিশেষভাবে ভারতীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের তার সরকারকে সহায়তা করার জন্য অবদানের কথা উল্লেখ করেছেন।

ভারত তার ‘প্রতিবেশী ফার্স্ট’ নীতির সাথে সামঞ্জস্য রেখে শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক ও মানবিক সংকটের শীর্ষে বহুমুখী সহায়তা বাড়িয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক