০১:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সিকিমে হচ্ছে এস-২০ সামিটের ২য় বৈঠক

কিছুদিন আগেই নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল জি-২০ ভুক্ত দেশগুলির বিদেশমন্ত্রীদের বৈঠক। এবার সিকিমে আয়োজিত হতে চলেছে বিজনেস ২০ মিট। বৃহস্পতিবারই এটি শুরু হতে চলেছে। এরপর মার্চের ১৮ ও ১৯ তারিখ স্টার্টআপ মিটের আয়োজন করা হয়েছে।

মোদী সরকারের নিজস্ব প্রকল্প রয়েছে ‘স্টার্ট আপ ইন্ডিয়া’। বিশ্বের নিরিখে নয়া স্টার্ট আপ সূচনায় ভারত প্রথম সারিতে রয়েছে। ফলত এই জি-২০ সম্মেলনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে ভারতের জন্য।

সিকিমের মুখ্য সচিব ভিবি পাঠক জানিয়েছেন, জি-২০ বৈঠকের জন্য সিকিম পুরোপুরি প্রস্তুত। রাজ্যের সমস্ত দায়িত্বশীল আধিকারিকরা এই বৈঠক সফলভাবে আয়োজন করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ নেতারা সেখানে উপস্থিত থাকবেন। ফলে সিকিমের উদ্যোক্তাদের জন্যও এটাকে সুবর্ণ সুযোগ বলে মনে করছেন তিনি।

সূত্রের খবর,  ২০টি জি-২০ ভুক্ত দেশ থেকে ৮০ জনের বেশি প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবেন বৃহস্পতিবারের এই বৈঠকে। ভারত জি-২০ এর সভাপতি হিসেবে এই প্রোগ্রামের আয়োজন করছে। সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী প্রেম সিং তামাং জানান, জি-২০ বৈঠকের আয়োজন করতে পেরে আমরা নিজেদের সম্মানিত বোধ করছি। রাজ্যকে নতুনভাবে সাজানো হয়েছে এই বৈঠকের জন্য।

আগামী বছরের লোকসভা নির্বাচনের আগে কেন্দ্রের মোদি সরকারের তুরুপের তাস হয়ে উঠেছে জি-২০ সম্মেলনের প্রেসিডেন্সি। একে নানাভাবে ব্যবহার করছে বিজেপি সরকার। এর আগে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যস্থতা করার চেষ্টাও করেছিলেন মোদি-জয়শঙ্কররা। কিন্তু তা অবশ্য সফল হয়নি। এবার বিজনেস সামিটকে কীভাবে ‘ব্যবহার’ করা হবে, সেটাই দেখতে মুখিয়ে রয়েছে দেশ। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

সিকিমে হচ্ছে এস-২০ সামিটের ২য় বৈঠক

প্রকাশ: ০৫:৪৬:২২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ মার্চ ২০২৩

কিছুদিন আগেই নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল জি-২০ ভুক্ত দেশগুলির বিদেশমন্ত্রীদের বৈঠক। এবার সিকিমে আয়োজিত হতে চলেছে বিজনেস ২০ মিট। বৃহস্পতিবারই এটি শুরু হতে চলেছে। এরপর মার্চের ১৮ ও ১৯ তারিখ স্টার্টআপ মিটের আয়োজন করা হয়েছে।

মোদী সরকারের নিজস্ব প্রকল্প রয়েছে ‘স্টার্ট আপ ইন্ডিয়া’। বিশ্বের নিরিখে নয়া স্টার্ট আপ সূচনায় ভারত প্রথম সারিতে রয়েছে। ফলত এই জি-২০ সম্মেলনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে ভারতের জন্য।

সিকিমের মুখ্য সচিব ভিবি পাঠক জানিয়েছেন, জি-২০ বৈঠকের জন্য সিকিম পুরোপুরি প্রস্তুত। রাজ্যের সমস্ত দায়িত্বশীল আধিকারিকরা এই বৈঠক সফলভাবে আয়োজন করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ নেতারা সেখানে উপস্থিত থাকবেন। ফলে সিকিমের উদ্যোক্তাদের জন্যও এটাকে সুবর্ণ সুযোগ বলে মনে করছেন তিনি।

সূত্রের খবর,  ২০টি জি-২০ ভুক্ত দেশ থেকে ৮০ জনের বেশি প্রতিনিধি উপস্থিত থাকবেন বৃহস্পতিবারের এই বৈঠকে। ভারত জি-২০ এর সভাপতি হিসেবে এই প্রোগ্রামের আয়োজন করছে। সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী প্রেম সিং তামাং জানান, জি-২০ বৈঠকের আয়োজন করতে পেরে আমরা নিজেদের সম্মানিত বোধ করছি। রাজ্যকে নতুনভাবে সাজানো হয়েছে এই বৈঠকের জন্য।

আগামী বছরের লোকসভা নির্বাচনের আগে কেন্দ্রের মোদি সরকারের তুরুপের তাস হয়ে উঠেছে জি-২০ সম্মেলনের প্রেসিডেন্সি। একে নানাভাবে ব্যবহার করছে বিজেপি সরকার। এর আগে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যস্থতা করার চেষ্টাও করেছিলেন মোদি-জয়শঙ্কররা। কিন্তু তা অবশ্য সফল হয়নি। এবার বিজনেস সামিটকে কীভাবে ‘ব্যবহার’ করা হবে, সেটাই দেখতে মুখিয়ে রয়েছে দেশ। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক