১২:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

উদ্ভাবন ও প্রযুক্তির বিকাশে এককাট্টা ভারত-জার্মানী

দু-দিনের জন্য ভারত সফরে এসেছেন জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজ। শনিবার ভারত সফরে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সহ দেশের একাধিক শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেছেন। বৈঠকে জার্মান ও ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন মোদী-শোলজ। এমনটাই খবর মিলেছে।

বৈঠক শেষে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ভারতের প্রশংসায় পঞ্চমুখ জার্মান চ্যান্সেলর। মোদীর দেশের প্রশংসা করে বলেছেন ভারতের অনেক প্রতিভা রয়েছে। তবে শুধু ওলাফ স্কোলজ নন প্রধানমন্ত্রী মোদীর জানিয়েছেন ইউরোপে ভারতের সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক অংশীদার হল জার্মানি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে শোলজ বলেন, “আমাদের প্রতিভা দরকার, আমাদের দক্ষ কর্মী দরকার। ভারতে আইটি এবং সফ্টওয়্যারের বিকাশ বাড়ছে এবং অনেক সক্ষম কোম্পানি এখানে ভারতে রয়েছে। ভারতে অনেক প্রতিভা রয়েছে এবং আমরা সেই সহযোগিতা থেকে উপকৃত হতে চাই। আমরা জার্মানিতে সেই প্রতিভাকে নিয়োগ করতে চাই।”

ভারতের উন্নয়ন হচ্ছে উল্লেখ করে জার্মান চ্যান্সেলর আরও বলেন, তাঁর এবং প্রধানমন্ত্রী মোদীর এই উন্নয়ন সম্পর্কে একই ধারণা রয়েছে। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছেন, “একে অপরের স্বার্থের অভিন্ন গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের উপর ভিত্তি করে ভারত ও জার্মানির মধ্যে শক্তিশালী সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। দুই দেশের মধ্যে গভীর বোঝাপড়ার উপর ভিত্তি করে ভারত ও জার্মানির সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। আমাদের বাণিজ্য বিনিময়ের ইতিহাস রয়েছে। জার্মানি ইউরোপে আমাদের সবচেয়ে বড় বাণিজ্যের অংশীদার।”

মোদী আরও বলেছেন, “বিগত কয়েক বছরে দু’দেশের জনগণের মধ্যে সম্পর্কের ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। আজ ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ এবং আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের ফলে সমস্ত ক্ষেত্রে নতুন সুযোগ এসেছে। আমরা এই সুযোগগুলোতে জার্মানির আগ্রহ দেখে উত্সাহিত হয়েছি।”

উল্লেখ্য, শনিবার দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজকে স্বাগত জানানো হয়। প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং চ্যান্সেলর স্কোলজ ইউক্রেন যুদ্ধ, ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের পরিস্থিতি, পরিচ্ছন্ন শক্তি, বাণিজ্য এবং নতুন প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা করেছেন।

নরেন্দ্র মোদী আজ ফের একবার রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে মিটিয়ে নেওয়ার কথা বলেছেন। জানিয়ে রাখা ভাল, ২০২১ সালের ডিসেম্বরে জার্মান চ্যান্সেলর হওয়ার পরে এটাই তাঁর প্রথম ভারত সফর। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

উদ্ভাবন ও প্রযুক্তির বিকাশে এককাট্টা ভারত-জার্মানী

প্রকাশ: ০২:৪১:০২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

দু-দিনের জন্য ভারত সফরে এসেছেন জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজ। শনিবার ভারত সফরে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সহ দেশের একাধিক শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেছেন। বৈঠকে জার্মান ও ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন মোদী-শোলজ। এমনটাই খবর মিলেছে।

বৈঠক শেষে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ভারতের প্রশংসায় পঞ্চমুখ জার্মান চ্যান্সেলর। মোদীর দেশের প্রশংসা করে বলেছেন ভারতের অনেক প্রতিভা রয়েছে। তবে শুধু ওলাফ স্কোলজ নন প্রধানমন্ত্রী মোদীর জানিয়েছেন ইউরোপে ভারতের সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক অংশীদার হল জার্মানি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে শোলজ বলেন, “আমাদের প্রতিভা দরকার, আমাদের দক্ষ কর্মী দরকার। ভারতে আইটি এবং সফ্টওয়্যারের বিকাশ বাড়ছে এবং অনেক সক্ষম কোম্পানি এখানে ভারতে রয়েছে। ভারতে অনেক প্রতিভা রয়েছে এবং আমরা সেই সহযোগিতা থেকে উপকৃত হতে চাই। আমরা জার্মানিতে সেই প্রতিভাকে নিয়োগ করতে চাই।”

ভারতের উন্নয়ন হচ্ছে উল্লেখ করে জার্মান চ্যান্সেলর আরও বলেন, তাঁর এবং প্রধানমন্ত্রী মোদীর এই উন্নয়ন সম্পর্কে একই ধারণা রয়েছে। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছেন, “একে অপরের স্বার্থের অভিন্ন গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের উপর ভিত্তি করে ভারত ও জার্মানির মধ্যে শক্তিশালী সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। দুই দেশের মধ্যে গভীর বোঝাপড়ার উপর ভিত্তি করে ভারত ও জার্মানির সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। আমাদের বাণিজ্য বিনিময়ের ইতিহাস রয়েছে। জার্মানি ইউরোপে আমাদের সবচেয়ে বড় বাণিজ্যের অংশীদার।”

মোদী আরও বলেছেন, “বিগত কয়েক বছরে দু’দেশের জনগণের মধ্যে সম্পর্কের ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। আজ ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ এবং আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের ফলে সমস্ত ক্ষেত্রে নতুন সুযোগ এসেছে। আমরা এই সুযোগগুলোতে জার্মানির আগ্রহ দেখে উত্সাহিত হয়েছি।”

উল্লেখ্য, শনিবার দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজকে স্বাগত জানানো হয়। প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং চ্যান্সেলর স্কোলজ ইউক্রেন যুদ্ধ, ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের পরিস্থিতি, পরিচ্ছন্ন শক্তি, বাণিজ্য এবং নতুন প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা করেছেন।

নরেন্দ্র মোদী আজ ফের একবার রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে মিটিয়ে নেওয়ার কথা বলেছেন। জানিয়ে রাখা ভাল, ২০২১ সালের ডিসেম্বরে জার্মান চ্যান্সেলর হওয়ার পরে এটাই তাঁর প্রথম ভারত সফর। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক