০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুদিনের সফরে ভারত সফরে জার্মান চ্যান্সেলর

ফেব্রুয়ারিতেই আসছেন ভারত সফরে জার্মান চ্যান্সেলর। চ্যান্সেলর হওয়ার পর প্রথম ভারত সফর। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতিতে জোর দিতেই ভারত সফর। ভারতের পররাষ্ট্র দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী শনিবারই ভারত সফরে আসছেন জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শোলৎস। ২৫ এবং ২৬ ফেব্রুয়ারী দুদিন ভারতে থাকবেন তিনি। জার্মানির চ্যান্সেলরের দায়িত্ব নেওয়ার পর এটাই তাঁর প্রথম ভারত সফর। শোলৎসের এই সফরে ভারত-জার্মান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে জোর দেওয়া হবে বলে সরকারি সূত্রে ইঙ্গিত মিলেছে।

গত ৫ ডিসেম্বর ভারত সফরে এসেছিলেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক। জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফরের সময় ওলাফের ভারত সফর নিশ্চিত করা হয়েছে। ভারত সফরকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ছাড়াও রাষ্ট্রপতি দ্রোপদী মুর্মুর সঙ্গেও সাক্ষাৎ করবেন জার্মান চ্যান্সেলর।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালে অ্যাঞ্জেলো মার্কেলকে সরিয়ে জার্মান চ্যান্সেলর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন ওলাফ শোলৎস। সূত্রের খবর, ভারত-জার্মান কৌশলগত সম্পর্ক জোরদার করতেই জার্মান চ্যান্সেলরের এই ভারত সফর। জার্মান সাংসদ টিলম্যান কুবান জানিয়েছেন যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠকে বাণিজ্য, প্রতিরক্ষা, শক্তি এবং জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বিষয়গুলো স্থান পেতে পারে। এ ক্ষেত্রে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা যাতে আরো বৃদ্ধি পায় সেদিকেই নজর দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

প্রসঙ্গত, জি-২০ সম্মেলন উপলক্ষ্যে বর্তমানে ভারত সফর করছেন টিলম্যান কুবানের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের এক জার্মান প্রতিনিধি দল। নয়াদিল্লি ও হায়দ্রাবাদে যাবে প্রতিনিধি দলটি। ভ্রমণকালে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তিনি। নরেন্দ্র মোদীর মেক ইন ইন্ডিয়ার প্রশংসা করেছেন জার্মান এমপি। খুব শীঘ্রই রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শেষ হবে বলেও আশাপ্রকাশ করেছেন জার্মান সাংসদ।

কুবান আরো জানিয়েছেন, জার্মানি ভারতে সাবমেরিন তৈরি করতে আগ্রহী। এ ব্যাপারে মুম্বই বন্দর তাঁদের নজরে আছে বলে জানান। সেই সঙ্গে আমেরিকা, ফ্রান্স ও ব্রিটেনের মতো লাদাখে চীনা আগ্রাসন নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জার্মানি সাংসদ। শুধু জার্মান এমপি নন। গত ডিসেম্বর মাসে ভারত সফরের সময় নয়াদিল্লির প্রশংসা করতে দেখা গিয়েছিল জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক-কে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কাছে ভারত একটি রোল মডেল হয়ে উঠেছে বলে দিল্লিতে ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে যুগ্ম সাংবাদিক বৈঠক করার সময় বলেছিলেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত ২৬ জানুয়ারি ইউক্রেনকে অতি শক্তিশালী লেপার্ড ২ ট্যাঙ্ক পাঠানোর সিদ্ধান্তের কথা জানায় জার্মানি। ট্যাঙ্ক পাঠানোর জন্য দীর্ঘদিন ধরেই জার্মানিকে চাপ দিচ্ছিল পশ্চিমের দেশগুলি। বার্লিনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানায় ফ্রান্স। জার্মানির সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে ক্রেমলিন জানায়, পশ্চিম যদি এ ভাবে ট্যাঙ্ক সরবরাহ করে, সেগুলো শেষমেশ যুদ্ধক্ষেত্রে ধ্বংস করা হবে। এতে যুদ্ধের পরিস্থিতি আর ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা কোন কোন মহলের। এ নিয়ে যখন বিতর্ক তৈরি হয়েছে, তখন শোলৎসের ভারত সফর যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

দুদিনের সফরে ভারত সফরে জার্মান চ্যান্সেলর

প্রকাশ: ১২:৩০:২৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

ফেব্রুয়ারিতেই আসছেন ভারত সফরে জার্মান চ্যান্সেলর। চ্যান্সেলর হওয়ার পর প্রথম ভারত সফর। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতিতে জোর দিতেই ভারত সফর। ভারতের পররাষ্ট্র দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী শনিবারই ভারত সফরে আসছেন জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শোলৎস। ২৫ এবং ২৬ ফেব্রুয়ারী দুদিন ভারতে থাকবেন তিনি। জার্মানির চ্যান্সেলরের দায়িত্ব নেওয়ার পর এটাই তাঁর প্রথম ভারত সফর। শোলৎসের এই সফরে ভারত-জার্মান দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে জোর দেওয়া হবে বলে সরকারি সূত্রে ইঙ্গিত মিলেছে।

গত ৫ ডিসেম্বর ভারত সফরে এসেছিলেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক। জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফরের সময় ওলাফের ভারত সফর নিশ্চিত করা হয়েছে। ভারত সফরকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ছাড়াও রাষ্ট্রপতি দ্রোপদী মুর্মুর সঙ্গেও সাক্ষাৎ করবেন জার্মান চ্যান্সেলর।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালে অ্যাঞ্জেলো মার্কেলকে সরিয়ে জার্মান চ্যান্সেলর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন ওলাফ শোলৎস। সূত্রের খবর, ভারত-জার্মান কৌশলগত সম্পর্ক জোরদার করতেই জার্মান চ্যান্সেলরের এই ভারত সফর। জার্মান সাংসদ টিলম্যান কুবান জানিয়েছেন যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠকে বাণিজ্য, প্রতিরক্ষা, শক্তি এবং জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বিষয়গুলো স্থান পেতে পারে। এ ক্ষেত্রে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা যাতে আরো বৃদ্ধি পায় সেদিকেই নজর দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

প্রসঙ্গত, জি-২০ সম্মেলন উপলক্ষ্যে বর্তমানে ভারত সফর করছেন টিলম্যান কুবানের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের এক জার্মান প্রতিনিধি দল। নয়াদিল্লি ও হায়দ্রাবাদে যাবে প্রতিনিধি দলটি। ভ্রমণকালে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তিনি। নরেন্দ্র মোদীর মেক ইন ইন্ডিয়ার প্রশংসা করেছেন জার্মান এমপি। খুব শীঘ্রই রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শেষ হবে বলেও আশাপ্রকাশ করেছেন জার্মান সাংসদ।

কুবান আরো জানিয়েছেন, জার্মানি ভারতে সাবমেরিন তৈরি করতে আগ্রহী। এ ব্যাপারে মুম্বই বন্দর তাঁদের নজরে আছে বলে জানান। সেই সঙ্গে আমেরিকা, ফ্রান্স ও ব্রিটেনের মতো লাদাখে চীনা আগ্রাসন নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জার্মানি সাংসদ। শুধু জার্মান এমপি নন। গত ডিসেম্বর মাসে ভারত সফরের সময় নয়াদিল্লির প্রশংসা করতে দেখা গিয়েছিল জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক-কে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কাছে ভারত একটি রোল মডেল হয়ে উঠেছে বলে দিল্লিতে ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে যুগ্ম সাংবাদিক বৈঠক করার সময় বলেছিলেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত ২৬ জানুয়ারি ইউক্রেনকে অতি শক্তিশালী লেপার্ড ২ ট্যাঙ্ক পাঠানোর সিদ্ধান্তের কথা জানায় জার্মানি। ট্যাঙ্ক পাঠানোর জন্য দীর্ঘদিন ধরেই জার্মানিকে চাপ দিচ্ছিল পশ্চিমের দেশগুলি। বার্লিনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানায় ফ্রান্স। জার্মানির সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে ক্রেমলিন জানায়, পশ্চিম যদি এ ভাবে ট্যাঙ্ক সরবরাহ করে, সেগুলো শেষমেশ যুদ্ধক্ষেত্রে ধ্বংস করা হবে। এতে যুদ্ধের পরিস্থিতি আর ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা কোন কোন মহলের। এ নিয়ে যখন বিতর্ক তৈরি হয়েছে, তখন শোলৎসের ভারত সফর যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক