০৫:০৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সন্ত্রাসের প্রতিরোধ হোক সম্মিলিত: ভারত

নাম না করে বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার মঞ্চে পাকিস্তানকে তুলোধোনা করল ভারতের বিদেশ মন্ত্রক। বিমসটেকভুক্ত দেশগুলোর সন্ত্রাস-বিরোধিতা এবং আন্তঃরাষ্ট্রীয় অপরাধ সংক্রান্ত যৌথ কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে বিদেশ মন্ত্রকের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব সঞ্জয় ভার্মা বলেন, কিছু দেশ সন্ত্রাসবাদকে তাদের রাষ্ট্রনীতির অঙ্গ করে নিয়েছে। বিষয়টি অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

ভার্মার কথায়, “সন্ত্রাসবাদকে বিন্দুমাত্র রেয়াত না-করার নীতি নিয়ে চলে ভারত। আমাদের এ ব্যাপারে পোক্ত আইনি কাঠামো রয়েছে, শাস্তি প্রদানের জন্য সংস্থা রয়েছে।”

এর পরেই তাঁর বক্তব্য, “যদিও এটা অত্যন্ত উদ্বেগজনক যে কিছু দেশের সরকার ও তাদের সংস্থাগুলো সন্ত্রাসবাদকে রাষ্ট্রনীতির অঙ্গ বানিয়ে ছেড়েছে। সন্ত্রাসবাদ এবং আন্তঃরাষ্ট্রীয় অপরাধের সব চেয়ে ভাল উদাহরণ হল আমাদের পশ্চিম সীমান্ত দিয়ে আসা মাদক, অস্ত্র এবং জঙ্গি পাচারের ঘটনা। সেই সঙ্গে ড্রোন ব্যবহার করে নাশকতা। এর পুরোটাই সে দেশের সরকারের মদদে চলছে।”

এই প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে উদ্ধৃত করেছেন বিদেশ মন্ত্রকের কর্তা। তাঁর কথায়, “সমস্ত রকম সন্ত্রাসবাদ রুখতে ভারত প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথায়, ‘আমরা মনে করি একটি আঘাতই অনেক। একটি মৃত্যুও অনেক। সন্ত্রাসবাদ যত ক্ষণ না সমূলে উৎপাটিত হচ্ছে, বিশ্রাম নেব না।” খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

সন্ত্রাসের প্রতিরোধ হোক সম্মিলিত: ভারত

প্রকাশ: ০১:৫৯:৪৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২৩

নাম না করে বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার মঞ্চে পাকিস্তানকে তুলোধোনা করল ভারতের বিদেশ মন্ত্রক। বিমসটেকভুক্ত দেশগুলোর সন্ত্রাস-বিরোধিতা এবং আন্তঃরাষ্ট্রীয় অপরাধ সংক্রান্ত যৌথ কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে বিদেশ মন্ত্রকের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব সঞ্জয় ভার্মা বলেন, কিছু দেশ সন্ত্রাসবাদকে তাদের রাষ্ট্রনীতির অঙ্গ করে নিয়েছে। বিষয়টি অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

ভার্মার কথায়, “সন্ত্রাসবাদকে বিন্দুমাত্র রেয়াত না-করার নীতি নিয়ে চলে ভারত। আমাদের এ ব্যাপারে পোক্ত আইনি কাঠামো রয়েছে, শাস্তি প্রদানের জন্য সংস্থা রয়েছে।”

এর পরেই তাঁর বক্তব্য, “যদিও এটা অত্যন্ত উদ্বেগজনক যে কিছু দেশের সরকার ও তাদের সংস্থাগুলো সন্ত্রাসবাদকে রাষ্ট্রনীতির অঙ্গ বানিয়ে ছেড়েছে। সন্ত্রাসবাদ এবং আন্তঃরাষ্ট্রীয় অপরাধের সব চেয়ে ভাল উদাহরণ হল আমাদের পশ্চিম সীমান্ত দিয়ে আসা মাদক, অস্ত্র এবং জঙ্গি পাচারের ঘটনা। সেই সঙ্গে ড্রোন ব্যবহার করে নাশকতা। এর পুরোটাই সে দেশের সরকারের মদদে চলছে।”

এই প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে উদ্ধৃত করেছেন বিদেশ মন্ত্রকের কর্তা। তাঁর কথায়, “সমস্ত রকম সন্ত্রাসবাদ রুখতে ভারত প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথায়, ‘আমরা মনে করি একটি আঘাতই অনেক। একটি মৃত্যুও অনেক। সন্ত্রাসবাদ যত ক্ষণ না সমূলে উৎপাটিত হচ্ছে, বিশ্রাম নেব না।” খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক