০১:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মোদী-নেতানিয়াহু ফোনালাপ

সদ্য ডিসেম্বর মাসে ইজরায়েলে নতুন সরকার গঠন করেছেন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। সেদেশে দীর্ঘ রাজনৈতিক টানাপোড়েনের জেরে ২০২২ এর শেষে দেখা যায় রাজনৈতিক পালাবদল। সংখ্যাগরিষ্ঠতার অঙ্কে মসনদে ফেরেন নেতানিয়াহু। এরপর ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে তাঁর ষষ্ঠ সরকার গঠনের পর বুধবার তাঁর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বন্ধুত্বের সমীকরণ গোটা আন্তর্জাতিক রাজনীতিতেই চর্চিত বিষয় হিসাবে উঠে এসেছে বহুকাল ধরে। এদিন ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে ফোন যায় ইজরায়েলে। দুই প্রধানমন্ত্রী কথা বলেন ফোন-সংযোগে।

জানা গিয়েছে, খুব শিগগিরই ভারত সফরের জন্য নেতানিয়াহুকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। জানা গিয়েছে, ইজরায়েলের ষষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নেতানিয়াহু মসনদে বসার পর তাঁকে অভিনন্দন বার্তা জানাতেই এই ফোন মোদী করেন নেতানিয়াহুকে।

প্রসঙ্গত, যেভাবে ইউক্রেন ও রাশিয়ার যুদ্ধের জেরে আন্তর্জাতিক আঙিনায় কূটনৈতিক নানান সমীকরণ উঠে আসছে, সেই জায়গা থেকে নেতানিয়াহুকে মোদীর ফোন বেশ প্রাসঙ্গিক বলেও মনে করা হচ্ছে।

এছাড়াও জানা গিয়েছে, ভারত ও ইজরায়েলের যৌথ প্রকল্পগুলিতে যেভাবে দ্রুত উন্নতি হচ্ছে তা নিয়ে দুই দেশের নেতারাই খুব স্বস্তি প্রকাশ করেছেন ফোনে। বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে স্ট্র্যাটেজিক সম্পর্ক যাতে আরও মজবুত হয়, তার ওপর জোর দেন দুই দেশের রাষ্ট্রনেতারা।

উল্লেখ্য, নেতানিয়াহু ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরই গত ২৯ ডিসেম্বর তাঁকে শুভেচ্ছা বার্তা জানান নরেন্দ্র মোদী। সেই বার্তাতেই নরেন্দ্র মোদী জানিয়ে দেন, ভারত ইজরায়েলের সঙ্গে ভবিষ্যতে স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারশিপ আরও মজবুত করার লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে চায়।

ইজরায়েলে লিকুদ পার্টির নেতা বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নেন ২০২২ সালের ২৯ ডিসেম্বর। সেই সময়েই তিনি দেশের প্রতি বার্তায় জানান, ইজরায়েলে দীর্ঘদিন ধরে চলা রাজনৈতিক চাঞ্চল্যকে এবার স্থিতাবস্থার রূপ দিতে তিনি বদ্ধপরিকর।

উল্লেখ্য, সংখ্যাগরিষ্ঠতার যে লড়াইয়ে বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু জয় লাভ করেন, সেখানে ১২০ আসনে ৬৩ টি ভোটই যায় তাঁর সমর্থনে। এরপরই তিনি ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী পদে আসীন হন। উল্লেখ্য, ইজরায়েলের ইতিহাসে নেতানিয়াহু একমাত্র প্রধানমন্ত্রী যিনি দেশে দীর্ঘদিন ধরে শাসন চালিয়েছেন। এবার ষষ্ঠ সরকার নিয়ে তিনি বসেছেন মসনদে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

মোদী-নেতানিয়াহু ফোনালাপ

প্রকাশ: ১২:২৪:৩৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ জানুয়ারী ২০২৩

সদ্য ডিসেম্বর মাসে ইজরায়েলে নতুন সরকার গঠন করেছেন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। সেদেশে দীর্ঘ রাজনৈতিক টানাপোড়েনের জেরে ২০২২ এর শেষে দেখা যায় রাজনৈতিক পালাবদল। সংখ্যাগরিষ্ঠতার অঙ্কে মসনদে ফেরেন নেতানিয়াহু। এরপর ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে তাঁর ষষ্ঠ সরকার গঠনের পর বুধবার তাঁর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বন্ধুত্বের সমীকরণ গোটা আন্তর্জাতিক রাজনীতিতেই চর্চিত বিষয় হিসাবে উঠে এসেছে বহুকাল ধরে। এদিন ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে ফোন যায় ইজরায়েলে। দুই প্রধানমন্ত্রী কথা বলেন ফোন-সংযোগে।

জানা গিয়েছে, খুব শিগগিরই ভারত সফরের জন্য নেতানিয়াহুকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। জানা গিয়েছে, ইজরায়েলের ষষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নেতানিয়াহু মসনদে বসার পর তাঁকে অভিনন্দন বার্তা জানাতেই এই ফোন মোদী করেন নেতানিয়াহুকে।

প্রসঙ্গত, যেভাবে ইউক্রেন ও রাশিয়ার যুদ্ধের জেরে আন্তর্জাতিক আঙিনায় কূটনৈতিক নানান সমীকরণ উঠে আসছে, সেই জায়গা থেকে নেতানিয়াহুকে মোদীর ফোন বেশ প্রাসঙ্গিক বলেও মনে করা হচ্ছে।

এছাড়াও জানা গিয়েছে, ভারত ও ইজরায়েলের যৌথ প্রকল্পগুলিতে যেভাবে দ্রুত উন্নতি হচ্ছে তা নিয়ে দুই দেশের নেতারাই খুব স্বস্তি প্রকাশ করেছেন ফোনে। বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে স্ট্র্যাটেজিক সম্পর্ক যাতে আরও মজবুত হয়, তার ওপর জোর দেন দুই দেশের রাষ্ট্রনেতারা।

উল্লেখ্য, নেতানিয়াহু ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরই গত ২৯ ডিসেম্বর তাঁকে শুভেচ্ছা বার্তা জানান নরেন্দ্র মোদী। সেই বার্তাতেই নরেন্দ্র মোদী জানিয়ে দেন, ভারত ইজরায়েলের সঙ্গে ভবিষ্যতে স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারশিপ আরও মজবুত করার লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে চায়।

ইজরায়েলে লিকুদ পার্টির নেতা বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নেন ২০২২ সালের ২৯ ডিসেম্বর। সেই সময়েই তিনি দেশের প্রতি বার্তায় জানান, ইজরায়েলে দীর্ঘদিন ধরে চলা রাজনৈতিক চাঞ্চল্যকে এবার স্থিতাবস্থার রূপ দিতে তিনি বদ্ধপরিকর।

উল্লেখ্য, সংখ্যাগরিষ্ঠতার যে লড়াইয়ে বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু জয় লাভ করেন, সেখানে ১২০ আসনে ৬৩ টি ভোটই যায় তাঁর সমর্থনে। এরপরই তিনি ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী পদে আসীন হন। উল্লেখ্য, ইজরায়েলের ইতিহাসে নেতানিয়াহু একমাত্র প্রধানমন্ত্রী যিনি দেশে দীর্ঘদিন ধরে শাসন চালিয়েছেন। এবার ষষ্ঠ সরকার নিয়ে তিনি বসেছেন মসনদে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক