১২:২৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়িত্বের দাবি ভারতের

বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে প্রতিনিধিত্বের বিষয়ে জি৪ দেশগুলির পক্ষ থেকে একটি যৌথ বিবৃতি দিল ভারত। নিরাপত্তা পরিষদের সংস্কারের জন্য দেশগুলির আবেদনকে বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়েছে এই বিবৃতিতে।

রাষ্ট্রসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি রুচিরা কাম্বোজ বলেন, “এই সংস্কারমূলক পদক্ষেপ যত বেশি পিছিয়ে যাবে, ততই প্রতিনিধিত্বের ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দেবে।” ব্রাজিল, জার্মানি, ভারত এবং জাপান এই যৌথ বিবৃতিতে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়ী আসনের দাবি করেছে।

তিনি বলেন, আমাদের এটিও মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে, চলতি বছর ৭৭তম সাধারণ পরিষদের আলোচনা সভা-সহ, বিভিন্ন ক্ষেত্রে ৭০টিরও বেশি দেশ ও তাদের সরকারের প্রধান এবং উচ্চ পর্যায়ের সরকারি প্রতিনিধিরা এই বিষয়ে জোর দিয়েছিলেন।

তাঁরা দাবি করেন যে, নিরাপত্তা পরিষদের একটি সংস্কার হওয়া প্রয়োজন। আর সেই কারণে চলতি অধিবেশনে এই বিষয়টি আমরা অগ্রাধিকার দিচ্ছি। তিনি জানান, এই বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে যত বিলম্ব হবে, ততই প্রতিনিধিত্বের ক্ষেত্রে ঘাটতি থেকে যাবে।

দুঁদে কূটনীতিবিদ এই বিষয়ে জোর দিয়ে বলেন, নিরাপত্তা পরিষদের দায়িত্ব হল সমস্ত সদস্যদের হয়ে সমানভাবে কাজ করা। আর সেই নিয়ম এখন বাস্তবায়িত করার সময় এসেছে।

কাজের পদ্ধতিতেও বেশ কিছু পরিবর্তনের সুপারিশ করেছে ভারত। ওয়েবকাস্টিং, রেকর্ড-কিপিং এবং সাধারণ পরিষদের পদ্ধতির নিয়মের প্রয়োগের মতো বিষয়গুলো কার্যকর করার কথা বলা হয়েছে। সমগ্র ব্যবস্থাপনাকে আরও স্বচ্ছ ও সহযোগিতামূলক করার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেছে ভারত।

ভারত জানিয়েছে, উভয় বিভাগেই সদস্যপদ বৃদ্ধি করা ছাড়া এগুলো অর্জন করা যাবে না। শুধুমাত্র এই নীতি বাস্তবায়িত করলে তবেই কাউন্সিল বর্তমান যুগের আন্তর্জাতিক দ্বন্দ্ব এবং ক্রমবর্ধমান জটিল, আন্তঃসম্পর্কিত চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে পারবে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়িত্বের দাবি ভারতের

প্রকাশ: ০২:২৪:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর ২০২২

বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে প্রতিনিধিত্বের বিষয়ে জি৪ দেশগুলির পক্ষ থেকে একটি যৌথ বিবৃতি দিল ভারত। নিরাপত্তা পরিষদের সংস্কারের জন্য দেশগুলির আবেদনকে বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়েছে এই বিবৃতিতে।

রাষ্ট্রসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি রুচিরা কাম্বোজ বলেন, “এই সংস্কারমূলক পদক্ষেপ যত বেশি পিছিয়ে যাবে, ততই প্রতিনিধিত্বের ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দেবে।” ব্রাজিল, জার্মানি, ভারত এবং জাপান এই যৌথ বিবৃতিতে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে স্থায়ী আসনের দাবি করেছে।

তিনি বলেন, আমাদের এটিও মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে, চলতি বছর ৭৭তম সাধারণ পরিষদের আলোচনা সভা-সহ, বিভিন্ন ক্ষেত্রে ৭০টিরও বেশি দেশ ও তাদের সরকারের প্রধান এবং উচ্চ পর্যায়ের সরকারি প্রতিনিধিরা এই বিষয়ে জোর দিয়েছিলেন।

তাঁরা দাবি করেন যে, নিরাপত্তা পরিষদের একটি সংস্কার হওয়া প্রয়োজন। আর সেই কারণে চলতি অধিবেশনে এই বিষয়টি আমরা অগ্রাধিকার দিচ্ছি। তিনি জানান, এই বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে যত বিলম্ব হবে, ততই প্রতিনিধিত্বের ক্ষেত্রে ঘাটতি থেকে যাবে।

দুঁদে কূটনীতিবিদ এই বিষয়ে জোর দিয়ে বলেন, নিরাপত্তা পরিষদের দায়িত্ব হল সমস্ত সদস্যদের হয়ে সমানভাবে কাজ করা। আর সেই নিয়ম এখন বাস্তবায়িত করার সময় এসেছে।

কাজের পদ্ধতিতেও বেশ কিছু পরিবর্তনের সুপারিশ করেছে ভারত। ওয়েবকাস্টিং, রেকর্ড-কিপিং এবং সাধারণ পরিষদের পদ্ধতির নিয়মের প্রয়োগের মতো বিষয়গুলো কার্যকর করার কথা বলা হয়েছে। সমগ্র ব্যবস্থাপনাকে আরও স্বচ্ছ ও সহযোগিতামূলক করার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেছে ভারত।

ভারত জানিয়েছে, উভয় বিভাগেই সদস্যপদ বৃদ্ধি করা ছাড়া এগুলো অর্জন করা যাবে না। শুধুমাত্র এই নীতি বাস্তবায়িত করলে তবেই কাউন্সিল বর্তমান যুগের আন্তর্জাতিক দ্বন্দ্ব এবং ক্রমবর্ধমান জটিল, আন্তঃসম্পর্কিত চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে পারবে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক