০৩:২০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

‘মাদার অফ পাকিস্তান’ বিলকিসের মৃত্যুতে মোদীর শোক

পাকিস্তানের প্রখ্যাত মানবতাবাদী ও সমাজসেবী বিলকিস এধির মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ১৬ এপ্রিল, শনিবার, নিজের টুইটার হ্যান্ডল থেকে করা এক পোস্টে তিনি মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করেছেন এবং তাঁর উদ্দেশ্যে শেষহীন সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

এধিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে মোদী লিখেছেন, “বিলকিস এধির মৃত্যুতে আমার আন্তরিক সমবেদনা। মানবিক কাজের প্রতি তার নিষ্ঠা সারা বিশ্বের মানুষের জীবনকে স্পর্শ করেছে। ভারতের মানুষও তাকে স্মরণ করে। তার আত্মা শান্তিতে থাকুক।”

এর আগে, শুক্রবার, সন্ধ্যায় করাচির আগা খান হাসপাতালে ৭৪ বছর বয়সে স্বল্প অসুস্থতার পর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বিলকিস এধি। তাঁর স্বামী ছিলেন বিখ্যাত মানবতাবাদী ও সমাজসেবক আব্দুল সাত্তার এধি। রক্তচাপ মারাত্মকভাবে কমে যাওয়ার পর বিলকিসকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। জানা গেছে, তিনি কার্ডিওভাসকুলার রোগে ভুগছিলেন।

বিলকিস ছিলেন একজন নার্স এবং জনহিতৈষী, যিনি ভারতের বান্টভাতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। দেশভাগের পর তিনি পাকিস্তানে চলে যান। সেখানে তিনি এবং তাঁর স্বামী মিলে এধি ফাউন্ডেশন গঠন করেন, যা পাকিস্তানের বৃহত্তম কল্যাণ সংস্থায় পরিণত হয়েছে।

তাঁর মানবহিতৈষী ও দাতব্য কাজের জন্য তাঁকে ‘মাদার অব পাকিস্তান’ বলা হতো। তিনি তাঁর কাজের জন্য অসংখ্য প্রশংসা পেয়েছিলেন, যা ছয় দশকেরও বেশি সময় ধরে বিস্তৃত ছিল। এর মধ্যে রয়েছে ১৯৮৬ সালে পাবলিক সার্ভিসের জন্য র্যামন ম্যাগসেসে পুরস্কার এবং ২০১৫ সালে সামাজিক ন্যায়বিচারের জন্য মাদার তেরেসা মেমোরিয়াল ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

‘মাদার অফ পাকিস্তান’ বিলকিসের মৃত্যুতে মোদীর শোক

প্রকাশ: ০৮:৪৫:০৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২২

পাকিস্তানের প্রখ্যাত মানবতাবাদী ও সমাজসেবী বিলকিস এধির মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ১৬ এপ্রিল, শনিবার, নিজের টুইটার হ্যান্ডল থেকে করা এক পোস্টে তিনি মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করেছেন এবং তাঁর উদ্দেশ্যে শেষহীন সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

এধিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে মোদী লিখেছেন, “বিলকিস এধির মৃত্যুতে আমার আন্তরিক সমবেদনা। মানবিক কাজের প্রতি তার নিষ্ঠা সারা বিশ্বের মানুষের জীবনকে স্পর্শ করেছে। ভারতের মানুষও তাকে স্মরণ করে। তার আত্মা শান্তিতে থাকুক।”

এর আগে, শুক্রবার, সন্ধ্যায় করাচির আগা খান হাসপাতালে ৭৪ বছর বয়সে স্বল্প অসুস্থতার পর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বিলকিস এধি। তাঁর স্বামী ছিলেন বিখ্যাত মানবতাবাদী ও সমাজসেবক আব্দুল সাত্তার এধি। রক্তচাপ মারাত্মকভাবে কমে যাওয়ার পর বিলকিসকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। জানা গেছে, তিনি কার্ডিওভাসকুলার রোগে ভুগছিলেন।

বিলকিস ছিলেন একজন নার্স এবং জনহিতৈষী, যিনি ভারতের বান্টভাতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। দেশভাগের পর তিনি পাকিস্তানে চলে যান। সেখানে তিনি এবং তাঁর স্বামী মিলে এধি ফাউন্ডেশন গঠন করেন, যা পাকিস্তানের বৃহত্তম কল্যাণ সংস্থায় পরিণত হয়েছে।

তাঁর মানবহিতৈষী ও দাতব্য কাজের জন্য তাঁকে ‘মাদার অব পাকিস্তান’ বলা হতো। তিনি তাঁর কাজের জন্য অসংখ্য প্রশংসা পেয়েছিলেন, যা ছয় দশকেরও বেশি সময় ধরে বিস্তৃত ছিল। এর মধ্যে রয়েছে ১৯৮৬ সালে পাবলিক সার্ভিসের জন্য র্যামন ম্যাগসেসে পুরস্কার এবং ২০১৫ সালে সামাজিক ন্যায়বিচারের জন্য মাদার তেরেসা মেমোরিয়াল ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক