০৩:৪৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দেশে তৈরী মিসাইল ‘হেলিনা’র সফল পরীক্ষা ভারতের

প্রতিরক্ষা খাতে আরও একবার সফলতার মুখ দেখলো ভারত। ১১ এপ্রিল, সোমবার, রাজস্থানের পোখরান রেঞ্জে সফলভাবে পরীক্ষা করা হয় ভারতের দেশীয়ভাবে তৈরি অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক গাইডেড মিসাইল ‘হেলিনা’র। পরবর্তীতে এক বিবৃতিতে তথ্যটি নিশ্চিত করে ভারতের প্রতিরক্ষা দপ্তর।

জানা গিয়েছে, একটি অ্যাডভান্সড লাইট হেলিকপ্টার (এএলএইচ) থেকে পরিচালনা করা হয় মিসাইলের ফ্লাইট ট্রায়াল। ক্ষেপণাস্ত্রটি সিমুলেটেড ট্যাঙ্ক লক্ষ্যবস্তুতে সফলভাবে নিক্ষেপ করা হয়। এটি একটি ইনফ্রারেড ইমেজিং সিকার দ্বারা পরিচালনা করা হয়েছিলো, যা লক অন বিফোর লঞ্চ মোডে কাজ করে থাকে।

মিসাইলের পরীক্ষাকালে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থায় নিযুক্ত সেনাবাহিনী এবং বিমানবাহিনীর বিজ্ঞানীদের একটি করে প্রতিনিধি দল। পাশাপাশি সিনিয়র সেনা কমান্ডার এবং ডিআরডিওর সিনিয়র বিজ্ঞানীরাও ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে, এক বার্তায়, ক্ষেপণাস্ত্রটিকে ‘বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী অস্ত্রগুলির মধ্যে একটি’ বলে অভিহিত করেছে ভারতের প্রতিরক্ষা দপ্তর।

উল্লেখ্য, ‘হেলিনা’ একটি তৃতীয় প্রজন্মের অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক গাইডেড ক্ষেপণাস্ত্র, যা সরাসরি টার্গেট মোডের পাশাপাশি টপ অ্যাটাক মোডে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করতে পারে। সব ধরণের আবহাওয়াতেই মিসাইলটি কার্যকর বলে জানা গিয়েছে।

এমন একটি প্রতিরক্ষা মিসাইল উদ্ভাবনের জন্য ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং ডিআরডিওকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং ডিআরডিও চেয়ারম্যান ডাঃ জি সতীশ রেড্ডি। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

ট্যাগ:

দেশে তৈরী মিসাইল ‘হেলিনা’র সফল পরীক্ষা ভারতের

প্রকাশ: ০৬:৪৫:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ এপ্রিল ২০২২

প্রতিরক্ষা খাতে আরও একবার সফলতার মুখ দেখলো ভারত। ১১ এপ্রিল, সোমবার, রাজস্থানের পোখরান রেঞ্জে সফলভাবে পরীক্ষা করা হয় ভারতের দেশীয়ভাবে তৈরি অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক গাইডেড মিসাইল ‘হেলিনা’র। পরবর্তীতে এক বিবৃতিতে তথ্যটি নিশ্চিত করে ভারতের প্রতিরক্ষা দপ্তর।

জানা গিয়েছে, একটি অ্যাডভান্সড লাইট হেলিকপ্টার (এএলএইচ) থেকে পরিচালনা করা হয় মিসাইলের ফ্লাইট ট্রায়াল। ক্ষেপণাস্ত্রটি সিমুলেটেড ট্যাঙ্ক লক্ষ্যবস্তুতে সফলভাবে নিক্ষেপ করা হয়। এটি একটি ইনফ্রারেড ইমেজিং সিকার দ্বারা পরিচালনা করা হয়েছিলো, যা লক অন বিফোর লঞ্চ মোডে কাজ করে থাকে।

মিসাইলের পরীক্ষাকালে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থায় নিযুক্ত সেনাবাহিনী এবং বিমানবাহিনীর বিজ্ঞানীদের একটি করে প্রতিনিধি দল। পাশাপাশি সিনিয়র সেনা কমান্ডার এবং ডিআরডিওর সিনিয়র বিজ্ঞানীরাও ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে, এক বার্তায়, ক্ষেপণাস্ত্রটিকে ‘বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী অস্ত্রগুলির মধ্যে একটি’ বলে অভিহিত করেছে ভারতের প্রতিরক্ষা দপ্তর।

উল্লেখ্য, ‘হেলিনা’ একটি তৃতীয় প্রজন্মের অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক গাইডেড ক্ষেপণাস্ত্র, যা সরাসরি টার্গেট মোডের পাশাপাশি টপ অ্যাটাক মোডে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করতে পারে। সব ধরণের আবহাওয়াতেই মিসাইলটি কার্যকর বলে জানা গিয়েছে।

এমন একটি প্রতিরক্ষা মিসাইল উদ্ভাবনের জন্য ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং ডিআরডিওকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং ডিআরডিও চেয়ারম্যান ডাঃ জি সতীশ রেড্ডি। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক