০১:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সঞ্জীবন যুব সংস্থার উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: “সমাজের পাশে, সমাজের তরে” – স্লোগানকে ধারণ করে স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন সঞ্জীবন যুব সংস্থার উদ্যোগে ময়মনসিংহ এবং জামালপুরে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার, ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১, ময়মনসিংহ সদর এবং জামালপুর সদর উপজেলায় শীতবস্ত্র এবং মাস্ক বিতরণ করেন সঞ্জীবন যুব সংস্থার সদস্যগণ।

উক্ত শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রমের সমন্বয়ক, সঞ্জীবন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পর্ষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শাখাওয়াত হোসাইন শাকিল বলেন,

“সঞ্জীবন যুব সংস্থা প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সাধারণ মানুষের পাশে থাকার প্রত্যয়ে কাজ করে আসছে। এমতাবস্থায় আমরা প্রতি বছরই চেষ্টা করি শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। তাই এবছরও বিগত বছর গুলোর ধারাবাহিকতায় আমরা চেষ্টা করেছি আমাদের এই স্বেচ্ছাসেবী কাজ চলমান রাখতে। বিগত ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে অদ্যবধি করোনাকালীন সময়ে আমাদের সমাজের আর্থ সামাজিক প্রেক্ষাপটে খেঁটে খাওয়া মানুষদের উপর যে ভয়ানক আচ এসেছে, তা এখনও বিদ্যমান।  বিশেষভাবে উল্লেখ না করলেই নয়, এবছর আমাদের বাজেটও তুলনামূলক কম হওয়ায় আমরা কম্বল বিতরণের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌছাতে পারিনি, কিন্তু সর্বোপরি আমরা তৃপ্ত এই ভেবে যে অন্ততপক্ষে নিজেদের অবস্থান থেকে সাধারণ মানুষের জন্যে কিছু করতে পারছি। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।”

চলমান বর্ষেই এ ধরণের আয়োজন আরও করার ব্যাপারে প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন এই তরুণ সাংগঠনিক।

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

সঞ্জীবন যুব সংস্থার উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ

প্রকাশ: ০৪:৫১:৫০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক: “সমাজের পাশে, সমাজের তরে” – স্লোগানকে ধারণ করে স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন সঞ্জীবন যুব সংস্থার উদ্যোগে ময়মনসিংহ এবং জামালপুরে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার, ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১, ময়মনসিংহ সদর এবং জামালপুর সদর উপজেলায় শীতবস্ত্র এবং মাস্ক বিতরণ করেন সঞ্জীবন যুব সংস্থার সদস্যগণ।

উক্ত শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রমের সমন্বয়ক, সঞ্জীবন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পর্ষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শাখাওয়াত হোসাইন শাকিল বলেন,

“সঞ্জীবন যুব সংস্থা প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সাধারণ মানুষের পাশে থাকার প্রত্যয়ে কাজ করে আসছে। এমতাবস্থায় আমরা প্রতি বছরই চেষ্টা করি শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। তাই এবছরও বিগত বছর গুলোর ধারাবাহিকতায় আমরা চেষ্টা করেছি আমাদের এই স্বেচ্ছাসেবী কাজ চলমান রাখতে। বিগত ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে অদ্যবধি করোনাকালীন সময়ে আমাদের সমাজের আর্থ সামাজিক প্রেক্ষাপটে খেঁটে খাওয়া মানুষদের উপর যে ভয়ানক আচ এসেছে, তা এখনও বিদ্যমান।  বিশেষভাবে উল্লেখ না করলেই নয়, এবছর আমাদের বাজেটও তুলনামূলক কম হওয়ায় আমরা কম্বল বিতরণের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌছাতে পারিনি, কিন্তু সর্বোপরি আমরা তৃপ্ত এই ভেবে যে অন্ততপক্ষে নিজেদের অবস্থান থেকে সাধারণ মানুষের জন্যে কিছু করতে পারছি। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।”

চলমান বর্ষেই এ ধরণের আয়োজন আরও করার ব্যাপারে প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন এই তরুণ সাংগঠনিক।