০৫:০৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টাঙ্গাইলে সঞ্জীবনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সবুজ মিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক: সঞ্জীবনের টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ঢাকা কলেজ তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সবুজ মিয়া-কে পদায়ন করা হয়েছে। ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ এ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সভাপতি ফাহিম আহম্মেদ মন্ডল এবং সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন হৃদয় স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে সবুজ মিয়া কে সহ সাধারণ সম্পাদক পদে পদায়ন করা হয়, পাশাপাশি সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম অনেস্টকে নিস্ক্রিয়তার অভিযোগে অব্যহতি দেয়া হয়। এরই প্রেক্ষিতে সবুজ মিয়া -কে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে কমিটির মেয়াদকাল অবধি দায়িত্ব চালিয়ে নিতে বলা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সঞ্জীবন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পর্ষদ সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন হৃদয় বলেন,

“আমরা আমাদের প্রতিটি ইউনিটকে শক্তিশালী করার জন্যে একতাবদ্ধ হয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করছি এবং দিনরাত আমাদের ভলান্টিয়ার সবাই আমরা পরিশ্রম করে যাচ্ছি। এমতাবস্থায় আমাদের মত তুলনামূলক নতুন সংগঠনের একটি ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক যদি তাঁর কার্যক্রম থেকে বিরত থাকেন কিংবা নিস্ক্রিয় থাকেন, তখন আমাদের জন্যে তা নেতিবাচক ইমেজের তৈরী করে। তাই সংগঠনকে শক্তিশালী করতেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।”

ট্যাগ:

টাঙ্গাইলে সঞ্জীবনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সবুজ মিয়া

প্রকাশ: ০৫:১৬:৫৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: সঞ্জীবনের টাঙ্গাইল জেলা শাখার নতুন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ঢাকা কলেজ তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সবুজ মিয়া-কে পদায়ন করা হয়েছে। ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ এ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সভাপতি ফাহিম আহম্মেদ মন্ডল এবং সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন হৃদয় স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে সবুজ মিয়া কে সহ সাধারণ সম্পাদক পদে পদায়ন করা হয়, পাশাপাশি সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম অনেস্টকে নিস্ক্রিয়তার অভিযোগে অব্যহতি দেয়া হয়। এরই প্রেক্ষিতে সবুজ মিয়া -কে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে কমিটির মেয়াদকাল অবধি দায়িত্ব চালিয়ে নিতে বলা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সঞ্জীবন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পর্ষদ সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেন হৃদয় বলেন,

“আমরা আমাদের প্রতিটি ইউনিটকে শক্তিশালী করার জন্যে একতাবদ্ধ হয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করছি এবং দিনরাত আমাদের ভলান্টিয়ার সবাই আমরা পরিশ্রম করে যাচ্ছি। এমতাবস্থায় আমাদের মত তুলনামূলক নতুন সংগঠনের একটি ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক যদি তাঁর কার্যক্রম থেকে বিরত থাকেন কিংবা নিস্ক্রিয় থাকেন, তখন আমাদের জন্যে তা নেতিবাচক ইমেজের তৈরী করে। তাই সংগঠনকে শক্তিশালী করতেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।”