মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
ময়মনসিংহে বঙ্গবন্ধু শিশু একাডেমীর উদ্যোগে শেখ রাসেল এর জন্মোৎসব ২০২০ পালিত ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলুন – গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি চিকিৎসা সেবায় করোনা স্বেচ্ছাসেবী সম্মাননা পেলেন প্রান্ত স্পেশালাইজড হাসপাতালের মনসুর আলম চন্দন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা ফুলবাড়িয়ার বালিয়ান ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচন উপলক্ষে যৌথ বর্ধিত সভা ময়মনসিংহে বর্ণাঢ্য আয়োজনে জাতীয় শ্রমিকলীগের ৫১ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে মহানগর স্বেচ্ছাসেবাক লীগের মানববন্ধন ময়মনসিংহে জলবদ্ধতা নিরসনে ও অবৈধ খাসজমি দখলমুক্তকরণের লক্ষ্যে মানববন্ধন দেশব্যাপী ধর্ষণের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করে কিশোরগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ করোনা সচেতনতামূলক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত

ক্ষতিকারক প্লাস্টিকের কাপ ও কিছু কথা

ক্ষতিকারক প্লাস্টিকের কাপ ও কিছু কথা

প্লাস্টিক

চা কফির এর নেশা কার না আছে? চা কফি ছাড়া যেন আড্ডা জমেই না। রাস্তার মোড়,  অলিতে গলিতে চা কফির দোকান। যেখানেই চা কফি খাওয়া হোক না কেন,  সেটা যেন হয় স্বাস্থ্যসম্মত। কিন্তু অনেক সময় বেশি স্বাস্থ্যসচেতনতা দেখাতে গিয়ে দোকানে অথবা সুপারশপে  ওয়ান টাইম প্লাস্টিকের তৈরি কাপে চা কফি সরবরাহ করা হয়।  আমরা কি কখনও ভেবে দেখেছি এই প্লাস্টিকের তৈরি কাপ আদৌ নিরাপদ কি না?

এক কথায় যদি বলতে হয় এই প্লাস্টিকের তৈরি কাপ নিরাপদ ত নয় ই বরং মানবদেহের জন্য হুমকিস্বরূপ ও বটে।

এই প্লাস্টিকের কাপে যখন গরম চা বা কফি ঢালা হয়, তখন কাপ তৈরির উপাদানসমূহ গরম পানীয়ের সাথে মিশে যায়। যার ফলে সহজেই মানবশরীরে প্রবেশ করে এবং তাতেই ঘটে বিপত্তি।

এই প্লাস্টিকের কাপগুলো তৈরিতে স্টাইরিন ব্যবহার করা হয়। কাপে যখন গরম পানীয় ঢালা হয়,  গবেষণায় প্রমাণিত প্রায় ০.০২৫% স্টাইরিন গরম পানীয়ের সাথে মিশে যায়।  স্টাইরিন মানবশরীরে প্রবেশ করলে,  তা মানুষের অণুচক্রিকার পরিমাণ  হ্রাস করে, হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ কমে যায়। এতে ক্রোমোসোমাল ও লিম্ফেটিক ভারসাম্যহীনতা দেখা যায়। স্পাইনাল কর্ড ও পেরিফেরাল নার্ভাস সিস্টেমকে দুর্বল করে দেয়। লিভার ও লিভারের টিস্যু ক্ষয়ের জন্য দায়ী এই স্টাইরিন।  অগ্ন্যাশয় এর ক্যান্সার সৃষ্টির জন্যও দায়ী এই স্টাইরিন।  স্টাইরিন মাতৃগর্ভের ভ্রূণকে নষ্ট করে দিতে পারে।

(সূত্রঃ ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সী ফর রিসার্চ অন ক্যান্সার)

অনেক প্লাস্টিকের কাপে “বিসফেনল-এ” উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হয়। যা পুরুষের শুক্রাণু উৎপাদনকে ব্যাপকহারে কমিয়ে দেয়। মেয়েদের সেক্স হরমোনকে পরিবর্তন করে দিতে পারে, যার ফলে বন্ধ্যাত্ব দেখা যায়। স্তন ক্যান্সারের জন্য দায়ী এর বিসফেনল-এ। শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাকে ধ্বংস করে দিতে পারে এই উপাদান। প্রস্টেট ক্যান্সার ও এই উপাদানের জন্য হয়ে থাকে।

ফরমাল্ডিহাইড যে সব প্লাস্টিক কাপ তৈরিতে  ব্যবহার করা হয়, সেসব কাপে চা কফি পান ও ক্ষতিকর।  লিউকেমিয়া ক্যান্সারের জন্য দায়ী এই ফরমাল্ডিহাইড।

(সূত্রঃ ন্যাশনাল টক্সিকোলজি সার্ভিস, ইউএস, ২০১৪)

অনেক সময় এসব কাপ তৈরিতে ভিনাইল ক্লোরাইড বা ডাইঅক্সিন ব্যবহার করা হয়, যা তীব্র কারসিনোজেনিক পদার্থ। এটি দেহের এন্ডোক্রাইন সিস্টেমকে নষ্ট করে দিতে পারে।

জীবন আমাদের। তাই সচেতনতাই পারে নিজের জীবনকে রক্ষা করতে। সুস্থ সবল নাগরিক দেশের সম্পদ। প্লাস্টিকের কাপে চা কফি বর্জন করি, সুস্থ থাকি।

Tanvir Sarker Tutul

Department of Biochemistry and Molecular Biology

Jahangirnagar University,  Savar, Dhaka.

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© ২০১৯ দৈনিক নবযুগ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Designed and developed by Smk Ishtiak