মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০১:০২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
কর্মকর্তারা গরিব মানুষকে আঘাত বা লাঞ্ছিত করে কি আশায়? ভালুকায় অসহায় মানুষের পাশে রয়েছে “তারুণ্যের আলো” iflixVIP সাবস্ক্রিপশন একমাস সম্পূর্ণ ফ্রি করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ভালুকাতে ভূমিকা রেখে চলেছে “তারুণ্যের আলো” “নির্বাসন” আমাদের অনিশ্চিত জীবনেরই গল্প কর্মকর্তারা গরিব মানুষকে আঘাত বা লাঞ্ছিত করে কি আশায়? ত্রিশালে ‘করোনা’ মোকাবেলায় কাজ করছে দ্যা স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ভালুকায় হাত ধোয়া কার্যক্রম জনপ্রিয় করতে এগিয়ে এলো ‘তারুণ্যের আলো’ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে র‍্যাব -১৪ বিভিন্ন কার্যক্রম করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে জেলা ছাত্রলীগ নেতা হুমায়ুন কবির

সার্কভুক্ত দেশগুলোতে স্বাস্থ্যঝুঁকি প্রতিরোধে ইন্সটিটিউশন প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর

সার্কভুক্ত দেশগুলোতে স্বাস্থ্যঝুঁকি প্রতিরোধে ইন্সটিটিউশন প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর

বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস সম্মিলিতভাবে প্রতিরোধে সার্কভুক্ত দেশগুলো নেতাদের অংশগ্রহণে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনস্বাস্থ্য ঝুঁকি প্রতিরোধে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোকে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে সম্মিলিতভাবে একটি একটি ইনস্টিটিউট গড়ে তোলার প্রস্তাব দিয়েছেন।

তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে ভবিষ্যৎ যেকোনো স্বাস্থ্যঝুঁকি প্রতিরোধ ও প্রতিহত করতে ইন্সটিটিউশন প্রতিষ্ঠা করা খুব জরুরি। সবাই সম্মত হলে বাংলাদেশ এ পদক্ষেপ নিতে আগ্রহী। এ বিষয়ে একটি ফোরাম গঠন করা যেতে পারে। আমরা আমাদের বিশেষজ্ঞদের শেয়ার করতে প্রস্তুত আছি। লজিস্টিক সাপোর্ট দেব, যদি প্রয়োজন হয়। রোববার বিকেলে সার্কের আটটি দেশের সরকারপ্রধান ও প্রতিনিধিদের ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী এই প্রস্তাব দেন।

করোনা প্রতিরোধে বাংলাদেশের গৃহিত পদক্ষেপ তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা সব ধরনের বন্দর ব্যবহারে সতর্ক আছি। শুধু করোনা ভাইরাসের চিকিৎসার জন্য কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালকে নির্দিষ্ট করা হয়েছে। এছাড়া রাজশাহীতে আরেকটি হাসপাতাল আছে, যেখানে শুধু করোনা ভাইরাস রোগের চিকিৎসা হবে। এছাড়া, প্রতিটি জেলায় হাসপাতালগুলোতে একটি ইউনিট রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, এই সংকট মোকাবিলায় আমাদের একে অপরকে সহায়তা করতে হবে এবং সার্কভুক্ত দেশগুলোর জন্য একটি কৌশল প্রণয়ন করা জরুরি। এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের মধ্যে টেলিকনফারেন্সের প্রস্তাব দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা তথ্য আদান-প্রদান করার জন্য তৈরি।

সার্কভুক্ত দেশগুলোর সরকার প্রধান ও প্রতিনিধিদের এই কনফারেন্সে ভারতের নরেন্দ্র মোদি সংকট মোকাবেলায় সম্মিলিতভাবে একটি জরুরি তহবিল গঠনের প্রস্তাব দেন। তিনি বলেন, আমাদের সবার স্বেচ্ছা-সহায়তার ভিত্তিতে এই তহবিল গঠন করা যেতে পারে। জরুরি এই তহবিলে প্রাথমিকভাবে ভারত এক কোটি ডলার দিয়ে শুরু করতে পারে। এই তহবিলের ব্যবহারের জন্য আমাদের দূতাবাসগুলো সমন্বয় করে কাজ করতে পারে।

এসময় শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রাজাপাকসে অর্থনীতিতে করোনাভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাবের বিষয়টি তুলে ধরে জরুরি এই পরিস্থিতিতে সার্ক নেতাদের দ্রুত উপায় খোঁজার তাগিদ দেন।

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট গনি সাংহাই করপোরেশনে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হিসেবে ভারতের থাকার বিষয়টি তুলে ধরে পরিস্থিতি মোকাবেলায় চীনের অভিজ্ঞতা গ্রহণের পরামর্শ দেন।

টেলিমেডিসিন সেবার একটি অভিন্ন রূপরেখা প্রণয়নের জন্য সার্ক নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান আফগান প্রেসিডেন্ট।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা জাফর মির্জাও সমন্বিত কাজের উপর জোর দিয়ে বলেন, “আমরা ভালোটা আশা করলেও সবচেয়ে খারাপ অবস্থার জন্য আমাদের তৈরি থাকতে হবে।”

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সূচনা বক্তব্যের পর সার্কভুক্ত দেশগুলোর প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রী-স্বাস্থ্য উপদেষ্টারা এ অঞ্চলে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় করণীয় কী হতে পারে এবং তাদের নিজ নিজ দেশ কী পদক্ষেপ নিয়েছে তা নিয়ে কথা বলেছেন।।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© ২০১৯ দৈনিক নবযুগ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Designed and developed by Smk Ishtiak