ঢাকা ১২:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ব্রিকস বৈঠকে দক্ষিণ আফ্রিকায় যাবেন মোদী

চলতি মাসে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিতব্য ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনে সশরীরে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ০৪ আগস্ট, শুক্রবার, দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপতি রামাফোসার সাথে ফোনালাপে এ বিষয়ে নিজের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন মোদী। এতে করে ব্রিকস শীর্ষ নেতৃত্বের চারজনই সশরীরে উপস্থিতির বার্তা দিলেন। তবে, আন্তর্জাতিক আদালতের বিরুদ্ধ রায়ের কারণে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন হয়তো এই সম্মেলনে ভার্চুয়ালি উপস্থিত হবেন।

এর আগে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স সূত্র ব্যবহার করে বেশ কিছু প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ব্রিকস দেশগুলির সম্মেলনে ভার্চুয়াল মাধ্যমে নিজেই উপস্থিত হতে পারেন। এই মাসের শেষের দিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় এই সম্মেলন হবে। সেখানেই তিনি উপস্থিত হতে পারেন।

তবে এনিয়ে বিদেশমন্ত্রক কোনও মন্তব্য করেনি। রয়টার্সের তরফে পিএমওর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। সেখান থেকে এনিয়ে কিছু বলা হয়নি। ২২ -২৪ অগস্ট জোহেনসবার্গে এই সম্মেলন হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে ভারত, চিন, রাশিয়া, সাউথ আফ্রিকা, ব্রাজিল অংশ নিতে পারে।

তবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আগে থেকেই জানিয়েছিলেন তিনি ভার্চুয়াল মাধ্যমে অংশ নেবেন। চিন ও রাশিয়া এই ব্রিকসের আরও সম্প্রসারণের ব্যাপারে প্রস্তাব আনতে পারে। তবে ভারত এখনও এনিয়ে কোনও বিবৃতি দেয়নি।

এদিকে এর আগে গত মাসে নিউ দিল্লিতে সাংহাই কো অপারেশন অর্গানাইজেশনের সামিট হওয়ার কথা ছিল। তবে শেষ পর্যন্ত আয়োজক হিসাবে ভারত এটি ভার্চুয়াল মাধ্যমেই করে।

এদিকে গালওয়ান সংঘর্ষের পর থেকে ভারত ও চিনের সম্পর্কে ফের অবনতি হয়েছিল। এরপ দুপক্ষের সীমান্তের পরিস্থিতি ঠিকঠাক রাখতে একাধিক রাউন্ডের কথাবার্তা হয়েছে।

এদিকে এবার ওয়াশিংটনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে রেড কার্পেট সংবর্ধনা জানানো হয়। সেখান থেকে ফিরে আসার পরে এসসিও সামিটের আয়োজন করা হয়। অন্যদিকে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ এখনও চলছে। তবে ভারত সরাসরি রাশিয়ার সমালোচনা থেকে বিরত থেকেছে। তবে ভারত কখনই হিংসাকে , যুদ্ধকে প্রশয় দেয় না। এদিকে সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিকে জি ২০ মিটিংয়ের আয়োজন করেছিল ভারতই। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

Tag :

Notice: Trying to access array offset on value of type int in /home/nabajugc/public_html/wp-content/themes/NewsFlash-Pro/template-parts/common/single_two.php on line 182

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

Popular Post

ব্রিকস বৈঠকে দক্ষিণ আফ্রিকায় যাবেন মোদী

Update Time : ০৩:৫৬:৪৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৪ অগাস্ট ২০২৩

চলতি মাসে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিতব্য ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনে সশরীরে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ০৪ আগস্ট, শুক্রবার, দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপতি রামাফোসার সাথে ফোনালাপে এ বিষয়ে নিজের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন মোদী। এতে করে ব্রিকস শীর্ষ নেতৃত্বের চারজনই সশরীরে উপস্থিতির বার্তা দিলেন। তবে, আন্তর্জাতিক আদালতের বিরুদ্ধ রায়ের কারণে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন হয়তো এই সম্মেলনে ভার্চুয়ালি উপস্থিত হবেন।

এর আগে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স সূত্র ব্যবহার করে বেশ কিছু প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ব্রিকস দেশগুলির সম্মেলনে ভার্চুয়াল মাধ্যমে নিজেই উপস্থিত হতে পারেন। এই মাসের শেষের দিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় এই সম্মেলন হবে। সেখানেই তিনি উপস্থিত হতে পারেন।

তবে এনিয়ে বিদেশমন্ত্রক কোনও মন্তব্য করেনি। রয়টার্সের তরফে পিএমওর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। সেখান থেকে এনিয়ে কিছু বলা হয়নি। ২২ -২৪ অগস্ট জোহেনসবার্গে এই সম্মেলন হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে ভারত, চিন, রাশিয়া, সাউথ আফ্রিকা, ব্রাজিল অংশ নিতে পারে।

তবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আগে থেকেই জানিয়েছিলেন তিনি ভার্চুয়াল মাধ্যমে অংশ নেবেন। চিন ও রাশিয়া এই ব্রিকসের আরও সম্প্রসারণের ব্যাপারে প্রস্তাব আনতে পারে। তবে ভারত এখনও এনিয়ে কোনও বিবৃতি দেয়নি।

এদিকে এর আগে গত মাসে নিউ দিল্লিতে সাংহাই কো অপারেশন অর্গানাইজেশনের সামিট হওয়ার কথা ছিল। তবে শেষ পর্যন্ত আয়োজক হিসাবে ভারত এটি ভার্চুয়াল মাধ্যমেই করে।

এদিকে গালওয়ান সংঘর্ষের পর থেকে ভারত ও চিনের সম্পর্কে ফের অবনতি হয়েছিল। এরপ দুপক্ষের সীমান্তের পরিস্থিতি ঠিকঠাক রাখতে একাধিক রাউন্ডের কথাবার্তা হয়েছে।

এদিকে এবার ওয়াশিংটনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে রেড কার্পেট সংবর্ধনা জানানো হয়। সেখান থেকে ফিরে আসার পরে এসসিও সামিটের আয়োজন করা হয়। অন্যদিকে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ এখনও চলছে। তবে ভারত সরাসরি রাশিয়ার সমালোচনা থেকে বিরত থেকেছে। তবে ভারত কখনই হিংসাকে , যুদ্ধকে প্রশয় দেয় না। এদিকে সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিকে জি ২০ মিটিংয়ের আয়োজন করেছিল ভারতই। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক