ঢাকা ১২:১৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মোদীর যুক্তরাষ্ট্র সফরে প্রতিরক্ষায় গুরুত্ব

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রাষ্ট্রীয় সফরে এখন যুক্তরাষ্ট্রে। এই সফরে সামরিক, বাণিজ্য, প্রযুক্তি খাতসহ আঞ্চলিক ইস্যু প্রাধান্য পাবে। ভূরাজনৈতিক মেরুকরণের প্রেক্ষাপটে এই দুই বিশ্ব নেতার সাক্ষাৎ বিশেষ তাৎপর্য বহন করছে। প্রকৃতপক্ষে ভূরাজনীতিতে চীনের প্রভাব মোকাবিলায় প্রতিরক্ষা এবং কূটনীতিতে ভারত-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ককে আরো নিবিড় করাই এই সফরের মূল উদ্দেশ্য। মোদির এই সফরকে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের নতুন একটি মাইলফলক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। যা তাদের অংশীদারিত্বকে আরো গভীর ও বৈচিত্র্যময় করে তুলবে।

আজ বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটনে হোয়াইট হাউসের সাউথ লনে মোদিকে বর্ণাঢ্য অভ্যর্থনা জানানো হবে। পরে ওভাল অফিসে মোদি ও বাইডেন আনুষ্ঠানিক বৈঠক করবেন। আজ রাতেই তার সম্মানে আয়োজিত রাষ্ট্রীয় নৈশভোজে যোগ দেবেন নরেন্দ্র মোদি। আলোচনা শেষে কোনো যৌথ সংবাদ সম্মেলনের পরিকল্পনা নেই। তবে এ ব্যাপারে এখনো কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা মুখপাত্র জন কিরবি।

ভারতে গণতন্ত্রের ‘ক্রম অবনতির’ বিষয়টি বাইডেন আলোচনায় তুলবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এ বিষয়ে তিনি মোদিকে কোনো লেকচার দেবেন না বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান।

ভয়েস অব আমেরকিার খবরে বলা হয়, প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম উৎপাদনে পারস্পরিক সহযোগিতাই হতে চলেছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির যুক্তরাষ্ট্র সফরের মূল আলোচ্য বিষয়। দুই রাষ্ট্রনেতার মধ্যে বৈঠকে গুরুত্ব পাবে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম তৈরিতে দুই দেশের সহযোগিতা। তার মধ্যে আধুনিক জেট ইঞ্জিন নির্মাণ সংক্রান্ত দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা চুক্তি সই হতে পারে বলে জানা গেছে। ভারতের সঙ্গে মিলিত উদ্যোগে ফাইটার জেটের ইঞ্জিন তৈরি করতে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র। এই নিয়ে চুক্তির কথাবার্তাও চলছে।

সরকারি সূত্রের খবর, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে নয়া মোড় আনতে ‘ক্রিটিকাল অ্যান্ড টেকনোলজি’ নামে নয়া প্রকল্প শুরু করতে চলেছে দুই দেশ। যৌথ উদ্যোগে জিই জেট ইঞ্জিন নির্মাণ সেই কর্মসূচিরই অন্তর্গত। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সচিব ক্যাথলিন হিকসের বৈঠকেও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছিল বলে সরকারি সূত্রের খবর।

বৈঠকে মোদি ও বাইডেন প্রতিরক্ষা সহযোগিতা, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই), কোয়ান্টাম কম্পিউটিং ও বিনিয়োগ সম্পর্কিত বেশ কিছু চুক্তির বিষয়ে ঘোষণা করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, চুক্তির পাশাপাশি দুই বিশ্ব নেতা আলোচনা করতে পারেন বাংলাদেশ নিয়েও। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

Tag :

Notice: Trying to access array offset on value of type int in /home/nabajugc/public_html/wp-content/themes/NewsFlash-Pro/template-parts/common/single_two.php on line 182

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

Popular Post

মোদীর যুক্তরাষ্ট্র সফরে প্রতিরক্ষায় গুরুত্ব

Update Time : ০৪:০১:১৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জুন ২০২৩

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রাষ্ট্রীয় সফরে এখন যুক্তরাষ্ট্রে। এই সফরে সামরিক, বাণিজ্য, প্রযুক্তি খাতসহ আঞ্চলিক ইস্যু প্রাধান্য পাবে। ভূরাজনৈতিক মেরুকরণের প্রেক্ষাপটে এই দুই বিশ্ব নেতার সাক্ষাৎ বিশেষ তাৎপর্য বহন করছে। প্রকৃতপক্ষে ভূরাজনীতিতে চীনের প্রভাব মোকাবিলায় প্রতিরক্ষা এবং কূটনীতিতে ভারত-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ককে আরো নিবিড় করাই এই সফরের মূল উদ্দেশ্য। মোদির এই সফরকে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের নতুন একটি মাইলফলক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। যা তাদের অংশীদারিত্বকে আরো গভীর ও বৈচিত্র্যময় করে তুলবে।

আজ বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটনে হোয়াইট হাউসের সাউথ লনে মোদিকে বর্ণাঢ্য অভ্যর্থনা জানানো হবে। পরে ওভাল অফিসে মোদি ও বাইডেন আনুষ্ঠানিক বৈঠক করবেন। আজ রাতেই তার সম্মানে আয়োজিত রাষ্ট্রীয় নৈশভোজে যোগ দেবেন নরেন্দ্র মোদি। আলোচনা শেষে কোনো যৌথ সংবাদ সম্মেলনের পরিকল্পনা নেই। তবে এ ব্যাপারে এখনো কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা মুখপাত্র জন কিরবি।

ভারতে গণতন্ত্রের ‘ক্রম অবনতির’ বিষয়টি বাইডেন আলোচনায় তুলবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এ বিষয়ে তিনি মোদিকে কোনো লেকচার দেবেন না বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান।

ভয়েস অব আমেরকিার খবরে বলা হয়, প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম উৎপাদনে পারস্পরিক সহযোগিতাই হতে চলেছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির যুক্তরাষ্ট্র সফরের মূল আলোচ্য বিষয়। দুই রাষ্ট্রনেতার মধ্যে বৈঠকে গুরুত্ব পাবে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম তৈরিতে দুই দেশের সহযোগিতা। তার মধ্যে আধুনিক জেট ইঞ্জিন নির্মাণ সংক্রান্ত দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা চুক্তি সই হতে পারে বলে জানা গেছে। ভারতের সঙ্গে মিলিত উদ্যোগে ফাইটার জেটের ইঞ্জিন তৈরি করতে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র। এই নিয়ে চুক্তির কথাবার্তাও চলছে।

সরকারি সূত্রের খবর, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে নয়া মোড় আনতে ‘ক্রিটিকাল অ্যান্ড টেকনোলজি’ নামে নয়া প্রকল্প শুরু করতে চলেছে দুই দেশ। যৌথ উদ্যোগে জিই জেট ইঞ্জিন নির্মাণ সেই কর্মসূচিরই অন্তর্গত। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সচিব ক্যাথলিন হিকসের বৈঠকেও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছিল বলে সরকারি সূত্রের খবর।

বৈঠকে মোদি ও বাইডেন প্রতিরক্ষা সহযোগিতা, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই), কোয়ান্টাম কম্পিউটিং ও বিনিয়োগ সম্পর্কিত বেশ কিছু চুক্তির বিষয়ে ঘোষণা করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, চুক্তির পাশাপাশি দুই বিশ্ব নেতা আলোচনা করতে পারেন বাংলাদেশ নিয়েও। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক