ঢাকা ১১:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জি৭ সম্মেলনে পরিবেশ রক্ষার বার্তা মোদীর

হিরোশিমায় (জাপান) অনুষ্ঠিত জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের সপ্তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পৃথিবীর আহ্বান শোনার আহ্বান জানিয়েছেন। পরিবেশ বান্ধব জীবনধারা গ্রহণের উপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, ভারতীয় সংস্কৃতি সবসময় পরিবেশ সুরক্ষার উপর জোর দিয়েছে। ভারতের উন্নয়ন যাত্রাও এই আদর্শের উপর ভিত্তি করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজ আমরা ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে দাঁড়িয়ে আছি। একাধিক সংকটে জর্জরিত বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তন, পরিবেশগত নিরাপত্তা এবং জ্বালানি নিরাপত্তা বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। এই বিশাল চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় একটি বাধা হল আমরা জলবায়ু পরিবর্তনকে শুধুমাত্র শক্তির দৃষ্টিকোণ থেকে দেখতে চাই। আমাদের আলোচনার পরিধি বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, “ভারতীয় সভ্যতায় পৃথিবীকে মায়ের মর্যাদা দেওয়া হয়েছে এবং এই সমস্ত চ্যালেঞ্জের সমাধান করতে আমাদের পৃথিবীর ডাক শুনতে হবে। সেই অনুযায়ী আপনার আচরণ পরিবর্তন করতে হবে। এই চেতনায়, ভারত মিশন লাইফ, ইন্টারন্যাশনাল সোলার অ্যালায়েন্স, অ্যালায়েন্স ফর ডিজাস্টার রেসিলিয়েন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচার, মিশন হাইড্রোজেন, বায়োফুয়েল অ্যালায়েন্স, বিগ ক্যাট অ্যালায়েন্সের মতো প্রাতিষ্ঠানিক সমাধান তৈরি করেছে।”

তিনি বলেন, আজ ভারতের কৃষকরা “প্রতি ফোঁটা মোর ফসল” মিশন অনুসরণ করে প্রতিটি ফোঁটা জল সংরক্ষণ করে উন্নতি ও উন্নয়নের পথে হাঁটছে। আমরা ২০৭০ সালের মধ্যে আমাদের নেট শূন্যের লক্ষ্যের দিকে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন, আমাদের বিশাল রেল নেটওয়ার্ক ২০৩০ সালের মধ্যে নেট জিরোতে পৌঁছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বর্তমানে, ভারতে নবায়নযোগ্য শক্তির স্থাপিত ক্ষমতা প্রায় ১৭৫ গিগাওয়াট। ২০৩০ সালের মধ্যে এটি ৫০০গিগাওয়াটে পৌঁছাবে। আমরা আমাদের সমস্ত প্রচেষ্টাকে পৃথিবীর প্রতি আমাদের দায়িত্ব হিসাবে বিবেচনা করি। এই চেতনা আমাদের উন্নয়নের ভিত্তি এবং আমাদের উন্নয়ন যাত্রার উচ্চাভিলাষী লক্ষ্যগুলির মধ্যে নিহিত রয়েছে। পরিবেশগত প্রতিশ্রুতি ভারতের উন্নয়ন যাত্রায় বাধা নয় বরং একটি অনুঘটক।

তিনি আরও বলে, জলবায়ু কর্মের দিকে অগ্রসর হওয়ার সময়, আমাদেরকে সবুজ এবং পরিচ্ছন্ন প্রযুক্তি সরবরাহ চেইনকে স্থিতিস্থাপক করতে হবে। আমরা যদি প্রযুক্তি হস্তান্তর এবং প্রয়োজনীয় দেশগুলিতে সাশ্রয়ী মূল্যের অর্থায়ন না করি তবে আমাদের আলোচনা কেবল আলোচনাই থেকে যাবে। মাটিতে কোন পরিবর্তন হবে না।

তিনি বলেন, আমি গর্ব করে বলছি যে ভারতের মানুষ পরিবেশ সচেতন এবং তাদের দায়িত্ব বুঝে। এই দায়িত্ববোধ আমাদের শিরা-উপশিরায় বহু শতাব্দী ধরে প্রবাহিত হয়েছে। ভারত সকলের সাথে তার অবদান রাখার জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

Tag :

Notice: Trying to access array offset on value of type int in /home/nabajugc/public_html/wp-content/themes/NewsFlash-Pro/template-parts/common/single_two.php on line 182

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

Popular Post

জি৭ সম্মেলনে পরিবেশ রক্ষার বার্তা মোদীর

Update Time : ০৯:২৪:৫৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩

হিরোশিমায় (জাপান) অনুষ্ঠিত জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের সপ্তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পৃথিবীর আহ্বান শোনার আহ্বান জানিয়েছেন। পরিবেশ বান্ধব জীবনধারা গ্রহণের উপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, ভারতীয় সংস্কৃতি সবসময় পরিবেশ সুরক্ষার উপর জোর দিয়েছে। ভারতের উন্নয়ন যাত্রাও এই আদর্শের উপর ভিত্তি করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজ আমরা ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে দাঁড়িয়ে আছি। একাধিক সংকটে জর্জরিত বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তন, পরিবেশগত নিরাপত্তা এবং জ্বালানি নিরাপত্তা বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। এই বিশাল চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় একটি বাধা হল আমরা জলবায়ু পরিবর্তনকে শুধুমাত্র শক্তির দৃষ্টিকোণ থেকে দেখতে চাই। আমাদের আলোচনার পরিধি বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, “ভারতীয় সভ্যতায় পৃথিবীকে মায়ের মর্যাদা দেওয়া হয়েছে এবং এই সমস্ত চ্যালেঞ্জের সমাধান করতে আমাদের পৃথিবীর ডাক শুনতে হবে। সেই অনুযায়ী আপনার আচরণ পরিবর্তন করতে হবে। এই চেতনায়, ভারত মিশন লাইফ, ইন্টারন্যাশনাল সোলার অ্যালায়েন্স, অ্যালায়েন্স ফর ডিজাস্টার রেসিলিয়েন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচার, মিশন হাইড্রোজেন, বায়োফুয়েল অ্যালায়েন্স, বিগ ক্যাট অ্যালায়েন্সের মতো প্রাতিষ্ঠানিক সমাধান তৈরি করেছে।”

তিনি বলেন, আজ ভারতের কৃষকরা “প্রতি ফোঁটা মোর ফসল” মিশন অনুসরণ করে প্রতিটি ফোঁটা জল সংরক্ষণ করে উন্নতি ও উন্নয়নের পথে হাঁটছে। আমরা ২০৭০ সালের মধ্যে আমাদের নেট শূন্যের লক্ষ্যের দিকে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন, আমাদের বিশাল রেল নেটওয়ার্ক ২০৩০ সালের মধ্যে নেট জিরোতে পৌঁছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বর্তমানে, ভারতে নবায়নযোগ্য শক্তির স্থাপিত ক্ষমতা প্রায় ১৭৫ গিগাওয়াট। ২০৩০ সালের মধ্যে এটি ৫০০গিগাওয়াটে পৌঁছাবে। আমরা আমাদের সমস্ত প্রচেষ্টাকে পৃথিবীর প্রতি আমাদের দায়িত্ব হিসাবে বিবেচনা করি। এই চেতনা আমাদের উন্নয়নের ভিত্তি এবং আমাদের উন্নয়ন যাত্রার উচ্চাভিলাষী লক্ষ্যগুলির মধ্যে নিহিত রয়েছে। পরিবেশগত প্রতিশ্রুতি ভারতের উন্নয়ন যাত্রায় বাধা নয় বরং একটি অনুঘটক।

তিনি আরও বলে, জলবায়ু কর্মের দিকে অগ্রসর হওয়ার সময়, আমাদেরকে সবুজ এবং পরিচ্ছন্ন প্রযুক্তি সরবরাহ চেইনকে স্থিতিস্থাপক করতে হবে। আমরা যদি প্রযুক্তি হস্তান্তর এবং প্রয়োজনীয় দেশগুলিতে সাশ্রয়ী মূল্যের অর্থায়ন না করি তবে আমাদের আলোচনা কেবল আলোচনাই থেকে যাবে। মাটিতে কোন পরিবর্তন হবে না।

তিনি বলেন, আমি গর্ব করে বলছি যে ভারতের মানুষ পরিবেশ সচেতন এবং তাদের দায়িত্ব বুঝে। এই দায়িত্ববোধ আমাদের শিরা-উপশিরায় বহু শতাব্দী ধরে প্রবাহিত হয়েছে। ভারত সকলের সাথে তার অবদান রাখার জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক