ঢাকা ১২:১০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

অপারেশন কাবেরী: ভারতে ফিরেছেন ৩,৮৬২ জন

আফ্রিকান মুসলিম রাষ্ট্র সুদানের সেনাবাহিনী এবং আধাসামরিক বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষে সুদানের পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে ওঠে। সেখানেই আটকে পড়েছিল বহু ভারতীয়। যা নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই বৈঠকের পরেই শুরু হয় সুদান থেকে ভারতীয়দের উদ্ধার অভিযান। যার নাম দেওয়া হয়েছিল “অপারেশন কাবেরী”। যুদ্ধ বিধ্বস্ত আফ্রিকার দেশ সুদানে আটকে পড়া নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য ভারতের  এই   অভিযান শেষ হয়েছে।

সূত্রের মতে, ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনী সুদান ছেড়ে যেতে ইচ্ছুক সকল নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে এনেছে। ভারতীয় নৌ ও বিমান বাহিনীর দ্বারা সরিয়ে নেওয়া লোকের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩,৮৬২ জন। শুক্রবার সকালে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর ৪৭ জন উদ্বাস্তু সহ শেষ বিমান সি১৩০ বিমানের আগমনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি মিশনের সফল সমাপ্তির সঙ্গে জড়িত সকল কর্মীদের বীরত্ব ও অঙ্গীকারকে অভিনন্দন জানান।

তিনি টুইটে লিখেছেন, “অপারেশন কাবেরি-এর সঙ্গে যুক্ত সকলের চেতনা, অধ্যবসায় এবং সাহসকে সাধুবাদ জানাই৷ খার্তুমে আমাদের দূতাবাস এই কঠিন সময়ে ব্যতিক্রমী উত্সর্গ দেখিয়েছে। সৌদি আরবে অবস্থানরত  টিম ইন্ডিয়া এবং ভারতে  বিদেশমন্ত্রকের রেসপন্স সেল সমন্বয়ের প্রচেষ্টা প্রশংসনীয় ছিল।”

জয়শঙ্করের টুইটে আরও  লিখেছেন, “অনিশ্চিত নিরাপত্তা পরিস্থিতিতে সারাদেশের বিভিন্ন স্থান থেকে যাত্রীদের পোর্ট সুদানে নিয়ে যাওয়া একটি জটিল অনুশীলন ছিল। ১৭টি ভারতীয় বিমানবাহিনীর ফ্লাইট এবং ৫টি ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজের মাধ্যমে আমাদের লোকদের পোর্ট সুদান থেকে সৌদি আরবের জেদ্দায় নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। সুদানের সীমান্তবর্তী দেশগুলোর মধ্য দিয়ে ৮৬ জন নাগরিককে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ওয়াদি সাইয়িদনা থেকে যে ফ্লাইটটি অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে সম্পাদিত হয়েছিল তাও স্বীকৃতির দাবিদার। জেদ্দা থেকে, বিমানবাহিনী এবং বাণিজ্যিক ফ্লাইটগুলি মানুষকে বাড়িতে নিয়ে এসেছে।”

ভারত সরকার ৫টি ভারতীয় নৌ জাহাজ এবং ১৭টি ভারতীয় বিমানবাহিনীর বিমান ব্যবহার করে আটকে পড়া ভারতীয়দের সরিয়ে নেওয়ার জন্য “অপারেশন কাবেরী” শুরু করে। ৯ দিন ধরে চলছে উদ্ধার অভিযান।

এই অভিযান নিয়ে ভারতের বিদেশমন্ত্রী লিখেছেন, “আমরা সৌদি আরবের কাছে কৃতজ্ঞ তাদের হোস্ট করার জন্য এবং এই প্রক্রিয়াটি সহজতর করার জন্য।  এছাড়াও চাদ, মিশর, ফ্রান্স, দক্ষিণ সুদান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, যুক্তরাজ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং জাতিসংঘের সমর্থনের প্রশংসা করুন। আমার সহকর্মী ভি মুরালিশরণের অবদানকে স্বীকৃতি দিন, যার মাটিতে উপস্থিতি শক্তি এবং আশ্বাসের উত্স ছিল।”

দক্ষিণ সুদানের  বিদেশ মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সুদানের দুটি যুদ্ধরত দল, সুদানিজ সশস্ত্র বাহিনী (এসএএফ) এবং আধাসামরিক র‌্যাপিড সাপোর্ট ফোর্সেস (আরএসএফ) ৭ দিনের যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক

Tag :

Notice: Trying to access array offset on value of type int in /home/nabajugc/public_html/wp-content/themes/NewsFlash-Pro/template-parts/common/single_two.php on line 182

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

Popular Post

অপারেশন কাবেরী: ভারতে ফিরেছেন ৩,৮৬২ জন

Update Time : ০৬:১১:০২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৫ মে ২০২৩

আফ্রিকান মুসলিম রাষ্ট্র সুদানের সেনাবাহিনী এবং আধাসামরিক বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষে সুদানের পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে ওঠে। সেখানেই আটকে পড়েছিল বহু ভারতীয়। যা নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই বৈঠকের পরেই শুরু হয় সুদান থেকে ভারতীয়দের উদ্ধার অভিযান। যার নাম দেওয়া হয়েছিল “অপারেশন কাবেরী”। যুদ্ধ বিধ্বস্ত আফ্রিকার দেশ সুদানে আটকে পড়া নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য ভারতের  এই   অভিযান শেষ হয়েছে।

সূত্রের মতে, ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনী সুদান ছেড়ে যেতে ইচ্ছুক সকল নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে এনেছে। ভারতীয় নৌ ও বিমান বাহিনীর দ্বারা সরিয়ে নেওয়া লোকের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩,৮৬২ জন। শুক্রবার সকালে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর ৪৭ জন উদ্বাস্তু সহ শেষ বিমান সি১৩০ বিমানের আগমনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি মিশনের সফল সমাপ্তির সঙ্গে জড়িত সকল কর্মীদের বীরত্ব ও অঙ্গীকারকে অভিনন্দন জানান।

তিনি টুইটে লিখেছেন, “অপারেশন কাবেরি-এর সঙ্গে যুক্ত সকলের চেতনা, অধ্যবসায় এবং সাহসকে সাধুবাদ জানাই৷ খার্তুমে আমাদের দূতাবাস এই কঠিন সময়ে ব্যতিক্রমী উত্সর্গ দেখিয়েছে। সৌদি আরবে অবস্থানরত  টিম ইন্ডিয়া এবং ভারতে  বিদেশমন্ত্রকের রেসপন্স সেল সমন্বয়ের প্রচেষ্টা প্রশংসনীয় ছিল।”

জয়শঙ্করের টুইটে আরও  লিখেছেন, “অনিশ্চিত নিরাপত্তা পরিস্থিতিতে সারাদেশের বিভিন্ন স্থান থেকে যাত্রীদের পোর্ট সুদানে নিয়ে যাওয়া একটি জটিল অনুশীলন ছিল। ১৭টি ভারতীয় বিমানবাহিনীর ফ্লাইট এবং ৫টি ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজের মাধ্যমে আমাদের লোকদের পোর্ট সুদান থেকে সৌদি আরবের জেদ্দায় নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। সুদানের সীমান্তবর্তী দেশগুলোর মধ্য দিয়ে ৮৬ জন নাগরিককে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ওয়াদি সাইয়িদনা থেকে যে ফ্লাইটটি অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে সম্পাদিত হয়েছিল তাও স্বীকৃতির দাবিদার। জেদ্দা থেকে, বিমানবাহিনী এবং বাণিজ্যিক ফ্লাইটগুলি মানুষকে বাড়িতে নিয়ে এসেছে।”

ভারত সরকার ৫টি ভারতীয় নৌ জাহাজ এবং ১৭টি ভারতীয় বিমানবাহিনীর বিমান ব্যবহার করে আটকে পড়া ভারতীয়দের সরিয়ে নেওয়ার জন্য “অপারেশন কাবেরী” শুরু করে। ৯ দিন ধরে চলছে উদ্ধার অভিযান।

এই অভিযান নিয়ে ভারতের বিদেশমন্ত্রী লিখেছেন, “আমরা সৌদি আরবের কাছে কৃতজ্ঞ তাদের হোস্ট করার জন্য এবং এই প্রক্রিয়াটি সহজতর করার জন্য।  এছাড়াও চাদ, মিশর, ফ্রান্স, দক্ষিণ সুদান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, যুক্তরাজ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং জাতিসংঘের সমর্থনের প্রশংসা করুন। আমার সহকর্মী ভি মুরালিশরণের অবদানকে স্বীকৃতি দিন, যার মাটিতে উপস্থিতি শক্তি এবং আশ্বাসের উত্স ছিল।”

দক্ষিণ সুদানের  বিদেশ মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সুদানের দুটি যুদ্ধরত দল, সুদানিজ সশস্ত্র বাহিনী (এসএএফ) এবং আধাসামরিক র‌্যাপিড সাপোর্ট ফোর্সেস (আরএসএফ) ৭ দিনের যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছে। খবর: ইন্ডিয়া নিউজ নেটওয়ার্ক