০২:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিশ্ব পুষ্টি দিবসের অঙ্গীকার- খাদ্য হোক নিরাপদ সবার

নিরাপদ খাদ্য সকলের-ই কাম্য। একজন ব্যক্তির ৫টি মৌলিক অধিকারের মধ্যে খাদ্য প্রথম ও প্রধান। তবে আমরা হরহামেশাই দেখছি খাদ্যে ভেজাল, অস্বাস্থ্যকর খাবার এবং অনিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থার ফলে অনেক মানুষ প্রাণ হারাচ্ছে কিংবা স্বাস্থ্য ঝুঁকির মুখোমুখি হচ্ছে।

২০২১ সালে ইয়ুথ ক্লাব অফ বাংলাদেশ এর ১৫ জন তরুণ দ্যা হাংগার প্রজেক্ট এর মাধ্যমে ব্রিটিশ কাউন্সিল এর লিড বাংলাদেশ ট্রেইনিং নিয়ে “Reweaving the Foodshed” নামক প্রকল্প শুরু করে।

তাদের লক্ষ্য হলো লোকাল কাউন্সিলর এবং সহযোগী সংগঠন গুলোর সহায়তার মাধ্যমে “নিরাপদ খাদ্য আইন ও খাদ্য নিরাপদ রাখার ৫ টি উপায়” নিয়ে জনসচেতনতা তৈরি করা। তারা বৃহত্তর ধানমন্ডি এলাকার মানুষদের নিয়ে কাজ শুরু করে এবং এখন পর্যন্ত প্রান্তিক পর্যায়ের ২০০০ এর ও অধিক মানুষের কাছে তারা তাদের প্রধান বিষয় তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছে।

প্রকল্পের কাজে তারা জরিপ, বিভিন্ন ক্যাম্পেইন, খাদ্য ব্যবসায়ী দের সাথে কথোপকথন, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য অধিদপ্তর, লোকাল কাউন্সিলর এবং ভোক্তা অধিকার বাংলাদেশের সাথে আলোচনার মাধ্যমে কাজের ধারা বজায় রাখেন।

আজ ২৮শে মে, ২০২২ বিশ্ব পুষ্টি দিবস উপলক্ষে প্রকল্পের সদস্যগণ ধানমন্ডি এলাকায় মোট ১০টি রেস্টুরেন্ট পরিদর্শন করে। এ সকল রেস্টুরেন্ট পরিদর্শনের মাধ্যমে রেস্টুরেন্ট কতৃপক্ষদের কে নিরাপদ খাদ্য আইন এবং খাদ্য নিরাপদ রাখার ৫টি উপায় সম্পর্কে অবহিত করে এবং বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ এর সহযোগিতায় লিফলেট বিতরণ এর মাধ্যমেও সচেতনতা তৈরী করে। কেননা, খাদ্য পুষ্টিকর হবার আগে জানতে হবে নিরাপদ খাদ্য নিয়ে।

ট্যাগ:
জনপ্রিয়

বিশ্ব পুষ্টি দিবসের অঙ্গীকার- খাদ্য হোক নিরাপদ সবার

প্রকাশ: ০২:৫৮:৪৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ মে ২০২২

নিরাপদ খাদ্য সকলের-ই কাম্য। একজন ব্যক্তির ৫টি মৌলিক অধিকারের মধ্যে খাদ্য প্রথম ও প্রধান। তবে আমরা হরহামেশাই দেখছি খাদ্যে ভেজাল, অস্বাস্থ্যকর খাবার এবং অনিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থার ফলে অনেক মানুষ প্রাণ হারাচ্ছে কিংবা স্বাস্থ্য ঝুঁকির মুখোমুখি হচ্ছে।

২০২১ সালে ইয়ুথ ক্লাব অফ বাংলাদেশ এর ১৫ জন তরুণ দ্যা হাংগার প্রজেক্ট এর মাধ্যমে ব্রিটিশ কাউন্সিল এর লিড বাংলাদেশ ট্রেইনিং নিয়ে “Reweaving the Foodshed” নামক প্রকল্প শুরু করে।

তাদের লক্ষ্য হলো লোকাল কাউন্সিলর এবং সহযোগী সংগঠন গুলোর সহায়তার মাধ্যমে “নিরাপদ খাদ্য আইন ও খাদ্য নিরাপদ রাখার ৫ টি উপায়” নিয়ে জনসচেতনতা তৈরি করা। তারা বৃহত্তর ধানমন্ডি এলাকার মানুষদের নিয়ে কাজ শুরু করে এবং এখন পর্যন্ত প্রান্তিক পর্যায়ের ২০০০ এর ও অধিক মানুষের কাছে তারা তাদের প্রধান বিষয় তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছে।

প্রকল্পের কাজে তারা জরিপ, বিভিন্ন ক্যাম্পেইন, খাদ্য ব্যবসায়ী দের সাথে কথোপকথন, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য অধিদপ্তর, লোকাল কাউন্সিলর এবং ভোক্তা অধিকার বাংলাদেশের সাথে আলোচনার মাধ্যমে কাজের ধারা বজায় রাখেন।

আজ ২৮শে মে, ২০২২ বিশ্ব পুষ্টি দিবস উপলক্ষে প্রকল্পের সদস্যগণ ধানমন্ডি এলাকায় মোট ১০টি রেস্টুরেন্ট পরিদর্শন করে। এ সকল রেস্টুরেন্ট পরিদর্শনের মাধ্যমে রেস্টুরেন্ট কতৃপক্ষদের কে নিরাপদ খাদ্য আইন এবং খাদ্য নিরাপদ রাখার ৫টি উপায় সম্পর্কে অবহিত করে এবং বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ এর সহযোগিতায় লিফলেট বিতরণ এর মাধ্যমেও সচেতনতা তৈরী করে। কেননা, খাদ্য পুষ্টিকর হবার আগে জানতে হবে নিরাপদ খাদ্য নিয়ে।