০৪:১১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

অস্ট্রেলিয়ায় আন্তর্জাতিক বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিচারক জাবির ফারহান

নিজস্ব প্রতিবেদক: অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কর্তৃক আয়োজিত ‘Anu Pre-Australs’ নামক আন্তর্জাতিক ডিবেটিং টুর্নামেন্টে ‘Core Adjudicator Panel’ এ থাকছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারহান রহমান (আইবিএ ৪৫)। তিনি বর্তমানে জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি – জেইউডিএস এর ইংলিশ ডিবেট কো- অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্বরত আছেন এবং আইবিএ জেইউ ডিবেটিং ক্লাবের সাবেক প্রেসিডেন্ট পদে দায়িত্ব পালন করে এসেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, খুব সল্প সময়ে এই অসাধারণ বিতার্কিক এতটা পথ সফলতার সাথে অতিক্রম করতে পেরেছেন শুধুমাত্র তার অদম্য ইচ্ছা শক্তি, কঠোর পরিশ্রম, অপরিসীম ধৈর্য্য নিয়ে লড়াই করার মানসিক শক্তির কারণেই। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এটি তার প্রথম বারের মত অংশগ্রহণ নয়। গত বছর তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট WUDC তে বিতার্কিক হিসেবে অংশগ্রহণ করেছেন।

সরেজমিনে আরও জানা যায়, তার বিতর্ক জীবন শুরুর সময়ে দেশের বিতর্কের প্রাঙ্গণে ইংরেজী বিতর্কের খুব একটা প্রচলন ছিল না, যার ফলে তার বিতর্কের পথটা খুব একটা মসৃণ ছিল না। এই বন্ধুর পথ তা তিনি খুব সফলতার সাথেই পাড়ি দিয়েছেন এবং সর্বোপরি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশের জন্য সুনাম বয়ে এনেছেন। নতুন বিতার্কিকদের জন্য এক প্রেরণার নাম হয়ে উঠেছেন তিনি। একজন বিতার্কিক এর পাশাপাশি একজন দক্ষ বিচারক হিসেবেও তিনি খ্যাতি অর্জন করেছেন। তার চুলচেরা বিশ্লেষণ, অন্যকে বুঝিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা তাকে এতোটা পথ পারি দিতে সাহায্য করেছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিনীত কণ্ঠে তিনি বলেন,

“আমি মনে করি এটা শেখার সুযোগ, এবং সুযোগ পেয়ে ভাল লাগছে। এভাবেই শেখার প্রচেষ্টাটা সামনের দিনগুলোতেও চালিয়ে যাব, আমাদের সবারই অনেক কিছু শেখা বাকি।”

ট্যাগ:

অস্ট্রেলিয়ায় আন্তর্জাতিক বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিচারক জাবির ফারহান

প্রকাশ: ১১:১০:২৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১ জুলাই ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কর্তৃক আয়োজিত ‘Anu Pre-Australs’ নামক আন্তর্জাতিক ডিবেটিং টুর্নামেন্টে ‘Core Adjudicator Panel’ এ থাকছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারহান রহমান (আইবিএ ৪৫)। তিনি বর্তমানে জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি – জেইউডিএস এর ইংলিশ ডিবেট কো- অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্বরত আছেন এবং আইবিএ জেইউ ডিবেটিং ক্লাবের সাবেক প্রেসিডেন্ট পদে দায়িত্ব পালন করে এসেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, খুব সল্প সময়ে এই অসাধারণ বিতার্কিক এতটা পথ সফলতার সাথে অতিক্রম করতে পেরেছেন শুধুমাত্র তার অদম্য ইচ্ছা শক্তি, কঠোর পরিশ্রম, অপরিসীম ধৈর্য্য নিয়ে লড়াই করার মানসিক শক্তির কারণেই। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এটি তার প্রথম বারের মত অংশগ্রহণ নয়। গত বছর তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট WUDC তে বিতার্কিক হিসেবে অংশগ্রহণ করেছেন।

সরেজমিনে আরও জানা যায়, তার বিতর্ক জীবন শুরুর সময়ে দেশের বিতর্কের প্রাঙ্গণে ইংরেজী বিতর্কের খুব একটা প্রচলন ছিল না, যার ফলে তার বিতর্কের পথটা খুব একটা মসৃণ ছিল না। এই বন্ধুর পথ তা তিনি খুব সফলতার সাথেই পাড়ি দিয়েছেন এবং সর্বোপরি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশের জন্য সুনাম বয়ে এনেছেন। নতুন বিতার্কিকদের জন্য এক প্রেরণার নাম হয়ে উঠেছেন তিনি। একজন বিতার্কিক এর পাশাপাশি একজন দক্ষ বিচারক হিসেবেও তিনি খ্যাতি অর্জন করেছেন। তার চুলচেরা বিশ্লেষণ, অন্যকে বুঝিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা তাকে এতোটা পথ পারি দিতে সাহায্য করেছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিনীত কণ্ঠে তিনি বলেন,

“আমি মনে করি এটা শেখার সুযোগ, এবং সুযোগ পেয়ে ভাল লাগছে। এভাবেই শেখার প্রচেষ্টাটা সামনের দিনগুলোতেও চালিয়ে যাব, আমাদের সবারই অনেক কিছু শেখা বাকি।”