বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৪৭ পূর্বাহ্ন

ময়মনসিংহের বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. গাজী হাসান কামাল

ময়মনসিংহের বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. গাজী হাসান কামাল

এনামুল হক ছোটনঃ সারাদেশের ন্যায় ময়মনসিংহ শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ১৪ নভেম্বর রবিবার থেকে এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এবার করোনার কারণে সিলেবাস ও বিষয় কমে যাওয়ায় পরীক্ষা শেষ হবে ২৩ নভেম্বর। তাই সকাল-বিকাল দুই শিফটে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরীক্ষা শুরুর দিন সকালে ময়মনসিংহ নগরীর বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. গাজী হাসান কামাল ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক । পরিদর্শনকালে ময়মনসিংহ শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. গাজী হাসান কামাল জানান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে সুষ্টুভাবে পরীক্ষা শুরু হয়েছে। কোথাও কোন সমস্যার খবর পাওয়া যায়নি।

এবার ময়মনসিংহ বোর্ডের অধীনে ১৪৭টি কেন্দ্রে চলতি এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় মোট ১ লাখ ৩২ হাজার ৯৭২জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। তাদের মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগের ৪২ হাজার ৫১৫জন, মানবিক বিভাগের ৭৮ হাজার ৯১২জন এবং ব্যবসায় বিভাগের ১১ হাজার ৫৪৫ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। তাদের মধ্যে ময়মনসিংহ জেলা থেকে বিজ্ঞান বিভাগের ১৯ হাজার ৩৮২জন, মানবিক বিভাগের ৩৪ হাজার ২২৯জন এবং ব্যবসায় বিভাগের ৫হাজার ৭১৫জন।মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা যায় , স্বাস্থ্যবিধি ঠিক রাখতে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের একই সময়ে পরীক্ষা না নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

পরীক্ষার সময় ও নম্বর কমিয়ে আনা হয়েছে। মুকুল নিকেতন কেন্দ্র পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. গাজী হাসান কামাল, সচিব প্রফেসর কিরীট কুমার দত্ত, সহকারী কমিশনার (ভুমি) নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট এইচ এম ইবনে মিজান, বোর্ড চেয়ারম্যানের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবদুল হক, টেক অফিসার উপজেলা একাডেমী সুপারভাইজার নারায়ণ চন্দ্র দাস ও কেন্দ্র সচিব মুকুর নিকেতনের প্রধান শিক্ষক সামসুল আলম। পরে বিদ্যাময়ী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এসময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক , অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসটি ) পারভেজুর রহমান, বিদ্যাময়ী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাছিমা আক্তার প্রমুখ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© ২০১৯ দৈনিক নবযুগ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Designed and developed by Smk Ishtiak